আড়ং, প্রাণ, মিল্কভিটাসহ ৭ কোম্পানির দুধে ক্ষতিকর অ্যান্টিবায়োটিক


বাজারে জনপ্রিয় পাস্তরিত দুধ আড়ং, প্রাণ, মিল্কভিটা, ফার্মফ্রেশ, ইগলু, ইগলু চকলেট ও ইগলু ম্যাংগোতে অ্যান্টিবায়োটিক পাওয়া গেছে। এ ৭টির কোনো কোনোটিতে ডিটার্জেন ও ফর্মালিনও মিলেছে। ইনডিপেনডেন্ট টিভি – ১৪.০০

মঙ্গলবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগ থেকে প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।দুধে অ্যান্টিবায়োটিকের উপস্থিতি পাওয়ায় উদ্বেগ জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের গবেষকরা।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারীতে জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের এক গবেষনা প্রতিবেদনে গরুর দুধ বা দুগ্ধজাত খাদ্যে পাওয়া যায় মানব দেহের জন্য ক্ষতিকর নানা উপাদান। এমন প্রতিবেদন গণমাধ্যমে আসার পর থেকেই সারা দেশে এই নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়।

বিষয়টি গড়ায় হাইকোর্টেও এমন পরিস্থিতিতেও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসী বিভাগ বাজার থেকে দুধ ও ঘিসহ ৮টি ভোগ্যপণ্যের নমুনা সংগ্রহ করে গবেষনা করে। গবেষনায় মিল্কভিটা, আড়ং, ফার্মফ্রেশ ও প্রাণসহ আরো ৭ টি পণ্যের পাস্তরিত দুধে এন্টিবায়টিক পায় গবেষকেরা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের মূখ্য গবেষক অধ্যাপক আ ব ম ফারুক বলেন, দুধে এন্টিবায়টিকের উপস্থিতি অত্যন্ত উদ্বেগের কিন্তু দুঃখজনক হলো আমাদের পরীক্ষায় পাস্তরিত দুধে ৭ টি নমুনার সব কটিতেই মানব চিকিৎসায় ব্যবহৃত এন্টিবায়োটিকের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।
এছাড়াও আড়ং, বাঘাবাড়ি, প্রাণ, মিল্কভিটাসহ ৮ ধরণের ঘি মানোত্তীর্ণ হয়নি। বাজারের ১১ ধরণের ফ্রুর্ট ড্রিংকসের মধ্যে ৭টির মানোত্তীর্ণ হতে পারেনি। একই অবস্থা গুড়া মশলায়। সংগৃহীত ৮ টি নমুনার মধ্যে ৬টি মানোত্তীর্ণে ব্যর্থ হয়েছে।

আ ব ম ফারুক বলেন, এ ব্যাপারে আমরা আরো সাবধান হতে পারি। কোথায় কোথায় আমাদের আরো সাবধান হতে হবে সেই বিষয়ে একটি দিক নির্দেশনা না পেলেও মোটামোটি পরামর্শ হিসেবে কাজ করতে পারি।

এছাড়াও বাজার থেকে সংগৃহীত রূপচাঁদা, ফ্রেশ, পুষ্টি, তীরসহ ৭টি তেলের মধ্যে এসিড ভ্যালু পরীক্ষায় ২ টি মানোত্তীর্ণ হয়নি বলেও প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন[email protected]এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]