ইরানে পরমাণু কর্মসূচি জোরদার


পরমাণু সমঝোতায় দেয়া নিজের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন স্থগিত রাখার অংশ হিসেবে ইরান ৭ জুলাই থেকে পাঁচ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার কাজ শুরু করতে পারে। এমন ইঙ্গিত দিয়েছেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতার সিনিয়র উপদেষ্টা আলী আকবর বেলায়েতি। তিনি বলেছেন, পরমাণু সমঝোতায় ৩.৬৭ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের যে বাধ্যবাধকতা রয়েছে, ৭ জুলাই থেকে তা আর মানবে না তার দেশ।

গত ৮ মে ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে আমেরিকার বেরিয়ে যাওয়ার এক বছরপূর্তিতে ইরান ঘোষণা করে, বিগত এক বছরে ইউরোপীয় দেশগুলো এ সমঝোতাকে বাঁচিয়ে রাখতে তেমন কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেনি।

এ অবস্থায় তেহরান ইউরোপকে ৬০ দিনের সময় দিয়ে ঘোষণা করে, এ সময়ের মধ্যে ইউরোপীয় দেশগুলোকে পরমাণু সমঝোতায় ইরানকে দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করতে হবে; বিশেষ করে ইরানের তেল রপ্তানি ও বৈদেশিক লেনদেন অবাধ করার ব্যবস্থা নিতে হবে। তা না হলে তেহরান এ সমঝোতার ২৬ ও ৩৬ নম্বর ধারা অনুসরণ করে এটির কিছু কিছু ধারার বাস্তবায়ন স্থগিত করবে।

এরই ধারাবাহিকতায় ইরান এরইমধ্যে সমৃদ্ধ ইউরেনিয়ামের মজুদ পরমাণু সমঝোতার নির্ধারিত পরিমাণের চেয়ে বেশি বাড়িয়েছে। পরমাণু সমঝোতায় ইরানকে সর্বোচ্চ ৩.৬৭ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার সীমারেখা বেধে দেয়া হয়েছে এবং গত চার বছর ইরান তা পালন করে এসেছে যদিও ওই সমঝোতা হওয়ার আগে ইরান শতকরা ২০ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করত।

প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি সম্প্রতি বলেছেন, ৭ জুলাইর আল্টিমেটাম শেষ হলে ইরান যতটা প্রয়োজন তত মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করবে। এ ছাড়া, ইরানের সর্বোচ্চ নেতার সিনিয়র উপদেষ্টা ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলী আকবার বেলায়েতি দু’দিন আগে বলেছেন, তার দেশ হয়তো ৫ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নেবে।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]