উপনির্বাচন ২১ মার্চই হবে: ইসি সচিব


করোনা সংক্রমণের ঝুঁকির কারণে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে ধর্মীয়, রাজনৈতিক, সামাজিক সব ধরনের কর্মসূচি স্থগিত করার জন্য ভিডিও কনফারেন্সে স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশনা পাঠানো হলেও ঢাকা-১০, বাগেরহাট-৪ ও গাইবান্ধা-৩ আসনের উপনির্বাচন অনুষ্ঠানে এখনও অনড় নির্বাচন কমিশন। আগামী ২১ মার্চ এ তিনটি সংসদীয় আসনে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) নির্বাচন কমিশনের জরুরি সভা শেষে কমিশনের সিনিয়র সচিব মো. আলমগীর হোসেন এ সিদ্ধান্তের কথা জানান। এর আগে, সিইসির সভাপতিত্বে কমিশন ভবনে জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ইসি সচিব বলেন, কমিশন এ ভোটের বিষয়ে সুবিধা-অসুবিধা দুটি বিষয়ই বিবেচনা করেছে। সুবিধা বেশি মনে হয়েছে বলেই ভোটের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।এরআগে, গত ১৭ মার্চ এক অনুষ্ঠানে সিইসি বলেছিলেন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে দুই-একদিনের মধ্যেই নির্বাচন বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানানো হবে।এদিকে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন, যশোর-৬ এবং বগুড়া-১ আসনের উপনির্বাচনের বিষয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি উল্লেখ করে ইসি সচিব বলেন, আগামী ২১ মার্চ কমিশনের নিয়মিত একটি বৈঠক রয়েছে। সেখানেই পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

 

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সরকার যেহেতু এখনও করোনাকে দুর্যোগ ঘোষণা করেনি, বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি মহামারি আকার ধারণ করেনি এবং আপনাদের (গণমাধ্যম) কথা মতে ভোটার টার্নওভার কম হবে বলে এ নির্বাচনে স্বাস্থ্যঝুঁকি হবে না বলে মনে করছি।তিনি আরও জানান, নির্বাচনের সময় সব ভোটকেন্দ্রে হ্যান্ড সেনিটাইজেশনসহ স্বাস্থ্য নিরাপত্তায় সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে।ভোটার কম উপস্থিতির প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যেহেতু ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে উপস্থিতি কম ছিল এবং এরই মধ্যে করোনা পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে, সেই হিসেবে আমরা মনে করছি ভোটার উপস্থিতি কম হবে। আইন অনুযায়ী কোনও নির্বাচনে যদি একজন ভোটারও ভোটাধিকার প্রয়োগ করে, তাহলে নির্বাচন বৈধ হবে এবং প্রার্থীকে বিজয়ী ঘোষণা করতে হবে।অপর এক প্রশ্নের জবাবে ইসি সচিব মো. আলমগীর হোসেন বলেন, সদ্য বিদেশফেরত ভোটারদের নির্বাচনে ভোট দিতে নিষেধ করা হয়নি, তবে তাদের ভোটকেন্দ্রে আসতে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে।

৩১ মার্চ পর্যন্ত এনআইডি সেবা বন্ধ:

ইসি সচিব বলেন, প্রবাসীরা দেশে ফিরলে বেশিরভাগই তাদের নামের অন্তর্ভুক্তি এবং সংশোধনসহ নানা ধরনের এনআইডি সেবা নিয়ে থাকেন। তবে যেহেতু করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা রয়েছে, এজন্য আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্তিসহ জাতীয় পরিয়পত্রের সব ধরনের সেবা বন্ধ থাকবে। সারাদেশেও এই আদেশ বলবৎ থাকবে।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]