কুয়াকাটায় কিশোরীর মামলায়, প্রেমিকসহ গ্রেফতার ৩

  • 17
    Shares

এস এম আলমগীর হোসেন, কলাপাড়া : পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সিলভার ক্রাউন নামের একটি আবাসিক হোটেলে আটকে রেখে প্রেমিকাকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় সোমবার (১১ জানুয়ারী) রাতে কিশোরী নিজে বাদী হয়ে মহিপুর থানায় ৩ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। রাতেই পুলিশ মামলার প্রধান আসামী প্রেমিক রনি প্যাদা (২৪), সহযোগী মাইনুল (২০) ও হোটেল ম্যানেজার শহিদুল ইসলামকে আটক করেছে। পরে আজ মঙ্গলবার দুপুরে তাদের আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ১০ থেকে ১৫ দিন আগে দশমিনা উপজেলার রনি প্যাদার সাথে তালতলী উপজেলার শারিকখালি গ্রামের ওই যুবতীর সঙ্গে মুঠোফোনের মাধ্যমে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই সূত্র ধরে রনি প্যাদা ১০ জানুয়ারী ওই কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কুয়াকাটায় বেড়াতে নিয়ে আসে। এরপর স্বামী স্ত্রীর পরিচয়ে আবাসিক হোটেল সিলভার ক্রাউনের ২০৬ নম্বর কক্ষে ওঠেন তারা। পরে ওই হোটেলে কিশোরীকে আটকে রেখে প্রথমে রনি প্যাদা ও তার সহযোগীরা যৌন নির্যাতন করে। পরে গতকাল ওই যুবতী কোন রকম ছাড়া পেয়ে তার পরিবারের সহায়তায় মহিপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মহিপুর থানার ওসি (তদন্ত) ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো: মিজানুর রহমান বলেন, ভিকটিমকে উদ্ধার করে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। আটককৃত তিনজনকে মঙ্গলবার সকালে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।


  • 17
    Shares

[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]