ক্যালেন্ডারে ১৯৭১ ও ২০২১ সাল হুবহু এক!


বিদায় নিচ্ছে ২০২০। কিছুদিন পরই শুরু হচ্ছে ইংরেজি নতুন বছর ২০২১। তবে অন্যান্য সব বছরের চেয়ে এ বছরটি নিয়ে বাংলাদেশিদের উত্তেজনা যেন কিছুটা অন্যরকম। কেননা স্বাধীনতার ৫০তম এ বছরটির প্রতিটি দিন মিলে গেছে ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রতিটি দিন ও বারের সঙ্গে।

১৯৭১ সালের ১ জানুয়ারি ছিল শুক্রবার, দরজায় কড়া নাড়া নতুন বছর ২০২১ এর ১ জানুয়ারিও শুক্রবার। শুধু প্রথম দিন নয়, স্বাধীনতার বছরের প্রতিটি দিনের তারিখ ও বার এবং ২০২১ সালের প্রতিটি দিন ও তারিখের মধ্যে হুবহু মিল দেখা গেছে। ১৯৭১ ও ২০২১ ক্যালেন্ডার বিশ্লেষণ করে এমন মিল দেখা গেছে।

১৯৭১ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি, ৭ মার্চ, ২৬ মার্চ ও ১৬ ডিসেম্বর যে বার ছিল, স্বাধীনতার ৫০ বছর পর ২০২১ সালে সেই একই বারে দিবসগুলো উদযাপন করবে বাংলাদেশিরা। গাণিতিক ভাষায় বিষয়টিকে আইডেন্টিটিক্যাল ক্যালেন্ডার ইয়ারস বা যমজ দিনপঞ্জির বছর বলে।

তবে ধর্মীয় উৎসবগুলো একই তারিখে হচ্ছে না। ১৯৭১ সালে ঈদুল ফিতর ছিল ২০ নভেম্বর। তবে ২০২১ সালে ১৩ থেকে ১৫ মে এর মধ্যে ঈদুল ফিতর হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

১৯৭১ সালের ক্যালেন্ডারের সঙ্গে এমন ঘটনা ১৯৮২, ১৯৯৩, ১৯৯৯ ও ২০১০ সালসহ মোট ৪ বার ঘটেছে। আবার আগামী ৫০ বছরে অর্থ্যাৎ ২০২১ থেকে ২০৭১ পর্যন্ত এমনটা আরও পাঁচবার ঘটতে পারে। ২০২৭, ২০৩৮, ২০৪৯, ২০৫৫ ও ২০৬৬ সালের বছরগুলোতে এমন ঘটনা ঘটবে। গাণিতিক নিয়মেই এমনটা ঘটে বলে জানিয়েছেন গণিতজ্ঞরা।

২০২১ সালের আগের যমজ বছরটি যেমন ছিল ১১ বছর আগে ২০১০ সালে। পরের যমজ বছরটি পাওয়া যাবে ৬ বছর পরে ২০২৭ সালে। সালগুলো বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, গাণিতিক নিয়মে দুটি যমজ বছর পেতে সর্বনিম্ন ৬ বছর থেকে সর্বোচ্চ ৪০ বছর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হতে পারে।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]