চরফ্যাশনের তরমুজের বাম্পার ফলন


শাহ কামাল, চরফ্যাশন : ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার ২১টি ইউনিয়নে গ্রামের পর গ্রাম তরমুজের বাম্পার ফলন হয়েছে। তবে বৈরী আবহাওয়া ও ঝড়ো হাওয়ার কারণে বেশকিছু চাষীর চাষাবাদ নষ্ট হয়ে গেছে। ক্ষতি হয়েছে কোটি টাকার তরমুজ। উপজেলার ৯ হাজার ২৭০ হেক্টর জমিতে তরমুজের চাষ হয়েছে বলে কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে।

নীলকমল ইউনিয়নের এক বাসিন্দা জানান, তিনি চর যমুনায় ১৯ একর জমিতে সুপার এম পি আর জাতের তরমুজ চাষ করেছেন যাতে আশার অধিক ফলন হয়েছে। শেষ সময় পর্যন্ত আবহাওয়া ভালো থাকলে তরমুজ বিক্রি করে ভালো লাভ করতে পারবেন বলে আশা করছেন তিনি। চর কলমী ইউনিয়নের জনৈক কৃষক আলমগীর জানান, গতবারের তুলনায় এ বছর ফলন ভালো হয়েছে। তরমুজ কাটাও শুরু করে দিয়েছেন তিনি।

ক্ষতিগ্রস্থ কয়েকজন কৃষক জানান, গত মাসে কয়েকবার ঝড়ো হাওয়া হওয়ার কারণে তাদের কিছু ফসল সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে গেছে। অনেক কৃষক ঋণগ্রস্থ হয়ে অন্য পেশায় ঢুকে পড়েছে। ভালো ফলন হওয়ায় বেশ কিছু চাষী অধিক মুনাফার আশায় বুক বেধেছেন। তবে পাইকাররা আসছেন তাদের কাছ থেকে তরমুজ কিনতে। এক পাইকার বলেন, আমরা ঢাকায় পাঠানোর জন্য আগাম ফসল কিনেছি। ঢাকায় প্রতি পিস তরমুজ ২০০-২৫০ টাকা দরে বিক্রি হবে বলে আশা করছি। ইতোমধ্যে চরফ্যাশনের খুচরা বাজারে আগাম তরমুজ বিক্রি শুরু করেছেন তিনি।


চরফ্যাশন বাজারে বর্তমানে প্রতি পিস তরমুজ ২০০-২৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। খুচরা বিক্রেতারা বলেন, আগাম তরমুজ উঠেছে, তাই দাম একটু বেশি। আমাদেরও মাঠ থেকে বেশি দামে কিনতে হচ্ছে। গত বছর বৃষ্টি হওয়ায় ভালো দাম পাইনি, এবছর যদি বৃষ্টিপাত বা প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হয় তবে গতবছরের লোকসান কাটিয়ে উঠতে পারব বলে আশা করছি।

চরফ্যাশন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মনোতোষ সিকদার জানান, এবছর তরমুজের প্রচুর ফলন হওয়ায় চাষিরা আনন্দিত। অনেকে ফল কাটার অপেক্ষায় আছেন, কেউ কেউ কাটা শুরু করেছেন। সম্প্রতি প্রবল বৃষ্টিতে পানি জমে প্রায় ২ হাজার হেক্টর জমির ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থদের পুনর্বাসনের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে উদ্যেগ নেওয়া হচ্ছে।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]