চাকরি হারিয়ে ধুকে ধুকে মারা গেলেন পবিপ্রবি`র কর্মচারী


পটুয়াখালী : পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের চাকুরিচ্যুত বাবুর্চি আব্দুল করিমের মৃত্যু নিয়ে ধোঁয়াশা সৃষ্টি হয়েছে। রোববার রাত ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডরমিটরিতে অসুস্থ অবস্থায় মারা যান তিনি। পরে পবিপ্রবি’র হেলথ কেয়ার ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে মৃত্যুর বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. হারুনর রশীদকে দায়ী করেছেন চাকরিচ্যুত হওয়া কর্মচারী করিমের স্ত্রী শাহমিনা বেগম। তিনি বলেন, ২৮ বছর চাকরি করার পর আমার স্বামীকে অন্যায়ভাবে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। চাকরি ফিরে পাওয়ার আশায় আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডরমিটরিতেই থাকতাম। চাকরি হারিয়ে এই করোনার সময় চিন্তায় চিন্তায় ধুকে ধুকে মারা গেছে আমার স্বামী।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. হারুনর রশীদের মোবাইল ফোনে একাধিককবার কল করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. স্বদেশ চন্দ্র সামন্ত বলেন,চাকরিচ্যুত হওয়া কর্মচারী কিভাবে মারা গেল সেটা আমাদের জানার কথা নয়। তবে চাকরিচ্যুত হওয়ার পরেও কিভাবে ওই কর্মচারী মাসের পর মাস বিশ্ববিদ্যালয়ের ডরমেটরিতে থাকতেন এমন প্রশ্নের জবাবে রেজিস্ট্রার বলেন,”বিষয়টি আমার জানা নেই। তাই এ বিষয়ে কিছু বলতে পারছি না।” মৃত্যু ও চাকরিচ্যুত কর্মচারীর বিশ্ববিদ্যালয়ের ডরমেটরিতে প্রায় পাঁচ মাস থাকা নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সুস্পষ্ট কোনো বক্তব্য না পাওয়ায় বিষয়টি নিয়ে ক্যাম্পাসে ধোঁয়াশার সৃষ্টি হয়েছে।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]