জিজ্ঞাসাবাদের সময় মিন্নিকে ইয়াবা গোলানো পানি খাওয়ায় পুলিশ!


বরগুনায় সদর কলেজ গেটের সামনে প্রকাশ্যে দিবালোকে কুপিয়ে রিফাত শরীফ হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী থেকে আসামি বনে যাওয়া কারাবন্দি স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে রিমান্ডে নিয়ে অমানুষিক নির্যাতন চালানো হয়েছে। পরিবারের সদস্যদের কাছে এই নির্যাতনের কথা জানিয়েছেন মিন্নি।

রিফাত হত্যায় জড়িত থাকার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়ার পর গত ১৯ জুলাই মিন্নিকে কারাগারে পাঠানো হয়। এখন তিনি কারাগারেই রয়েছেন।

এদিকে, মিন্নিকে গ্রেফতারের পর বিভিন্ন সময় গণমাধ্যমে এসেছে, রিমান্ডের নামে তার উপর পাশবিক নির্যাতনের খবর। জানা গেছে, শারীরিক নির্যাতন করেই আসামি হিসেবে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে বাধ্য করা হয়েছে মিন্নিকে।

রবিবার (৪ আগস্ট) সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা জানান মিন্নির মা জিনাত জাহান।

এদিনে মিন্নির মা-বোন সহ পরিবারের সদস্যরা কারাগারে তার সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন। ওই সময় তাদের কাছে রিমান্ডে নিয়ে পৈশাচিক নির্যাতনের বর্ণনা দেন মিন্নি।

মেয়ে মিন্নির মুখ থেকে শোনা নির্যাতনের ঘটনা সাংবাদিকদের বলতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন মিন্নির মা জিনাত জাহান। তিনি বলেন, এএসআই রিতার নেতৃত্বে মিন্নির ওপর নির্যাতন চালানো হয়। মিন্নিকে বাড়ি থেকে নিয়ে এসে ১২-১৩ ঘণ্টা শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালানো হয়।

পুলিশ লাইনে একটি কক্ষে এএসআই রিতার নেতৃত্বে ৪-৫ জন পুলিশ তার ওপর পৈশাচিক নির্যাতন চালায়। এ সময় পানি পান করতে চাইলেও তাকে পানি দেওয়া হয়নি। গ্রেফতার দেখানোর পরে রাতে পানির সঙ্গে ইয়াবা ট্যাবলেট মিশিয়ে তাকে খেতে দেওয়া হয়েছে।

একটি সাদা কাগজে লিখিত বক্তব্য দিয়ে তাকে মুখস্থ করতে পুলিশ বার বার চাপ দিয়েছে। যতক্ষণ মুখস্থ বলতে না পেরেছে ততক্ষণ পর্যন্ত রিতা ও তার সহযোগীরা তাকে নির্যাতন করেছে। পুলিশ মিন্নিকে ভয় দেখিয়ে বলেছে লিখিত বক্তব্য আদালতে না বললে তার বাবা-মা ও চাচাদের ধরে আনা হবে।

উল্লেখ্য, গত ২৬ জুন সকালে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনের সড়কে প্রকাশ্যে বহু পথচারীর উপস্থিতিতে রিফাতকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে আহত করে একদল যুবক। গুরুতর আহত অবস্থায় বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল ৪টার দিকে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় রিফাতের বাবা আবদুল হালিম দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামি করে বরগুনা থানায় হত্যা মামলা করেন।

সূত্র : বিডি২৪লাইভ


বরিশালট্রিবিউন.কম’র (www.barisaltribune.com) প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।