নতুনেই আস্থা শেখ হাসিনার


সব জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে নতুনেই আস্থা রাখলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নতুনদের ওপর আস্থা রেখে যে মন্ত্রিসভা গঠন করেছেন তা অত্যন্ত সাহসী পদক্ষেপ বলে মন্তব্য করছেন বিশ্লেষকরা।

তাদের মতে, নতুন এবং উদ্যমীদের নিয়ে গঠিত মন্ত্রিসভা নিয়েই শেখ হাসিনা পাড়ি দেবেন অথৈ সাগর। পৌঁছে যাবেন অভিষ্ট লক্ষ্যে।

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে উন্নত দেশের কাতারে নেয়ার যে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন, সে হিসেবেই প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেন। এ ছাড়া ডেল্টা প্ল্যান ২১০০ সালকে টার্গেট করে তিনি নতুন মন্ত্রিসভা গঠন করলেন। যেখানে রয়েছে শেখ হাসিনার উদ্যমী ও সাহসী একঝাঁক সৈনিক। যারা শেখ হাসিনাকে অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছে দেবেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দারিদ্র্য মুক্ত সোনার বাংলা গঠনে এসব সৈনিক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

নতুন মন্ত্রিসভা প্রসঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক সাদেকা হালিম জাগো নিউজকে বলেন, নতুনদের মন্ত্রী বানিয়ে শেখ হাসিনা তার ইশতেহারে ঘোষিত চ্যালেঞ্জ বাস্তবায়ন করতে চান। এটা অত্যন্ত সাহসী পদক্ষেপ এবং কালজয়ী সিদ্ধান্ত। যারা আগেও মন্ত্রিসভায় দায়িত্ব পালন করেছেন এবং আবারও এসেছেন তারা পরীক্ষিত। আর নতুন যাদের আনা হয়েছে তাদের ব্যাকগ্রাউন্ড দেখেই নেয়া হয়েছে। তারা এর আগে দলের যে দায়িত্বে ছিলেন তাতে তারা দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন।

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, যেহেতু সংসদে সত্যিকার অর্থে কার্যকর বিরোধী দল নেই, সে কারণে যারা মন্ত্রী হলেন তাদের নিজেদের দায়িত্ব নিজেদের নিতে হবে। সংযত থাকতে হবে। দুর্নীতির ঊর্ধ্বে থেকে কাজ করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী তার ইশতেহারে দুর্নীতির জিরো টরারেন্সের যে ঘোষণা দিয়েছেন তা যেন বজায় থাকে এ চেষ্টা মন্ত্রিপরিষদ সদস্যদের করতে হবে।

তিনি বলেন, বঙ্গভবনে গিয়ে শপথ নিয়ে বাসায় গিয়ে তারা যেন নিজে নিজে আবার শপথ নেন যে দায়িত্ব পালনকালে দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেবে না।

সোমবার (৭ জানুয়ারি) যারা নতুন সরকারের মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন তারা হচ্ছেন, ড. আবদুর রাজ্জাক-, ড. হাছান মাহমুদ, তাজুল ইসলাম, ডা. দীপু মনি, ড. আবদুল মোমেন, নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, গোলাম দস্তগীর গাজী, সাধন চন্দ্র মজুমদার, টিপু মুনশি, শ ম রেজাউল করিম, শাহাব উদ্দিন, বীর বাহাদুর উশৈসিং ও নুরুল ইসলাম সুজন।

প্রতিমন্ত্রী হিসেবে যারা শপথ নেবেন-কামাল আহমেদ মজুমদার, ইমরান আহমদ, জাহিদ আহসান রাসেল, আশরাফ আলী খান খসরু, বেগম মন্নুজান সুফিয়ান, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, জাকির হোসেন, জুনায়েদ আহমেদ পলক, ফরহাদ হোসেন, স্বপন ভট্টাচার্য, জাহিদ ফারুক, মুরাদ হাসান, শরিফ আহমেদ, কে এম খালিদ, ডা. এনামুর রহমান, মাহবুব আলী ও শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ।

উপ-মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন-বেগম হাবিবুন নাহার, এনামুল হক শামীম ও মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

শপথ নিতে যাওয়া মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী এবং উপ-মন্ত্রীদের মধ্যে কেউ কেউ ২০১৪ সালের কেবিনেটে ছিলেন। তখন তারা স্ব স্ব মন্ত্রণালয়ে দক্ষতার স্বাক্ষর রেখেছেন। তবে এবারে অধিকাংশই নতুন মন্ত্রী হচ্ছেন। যাদের প্রথমবারের মতো মন্ত্রী করা হচ্ছে তাদের অধিকাংশেরই ব্যক্তিগত ইমেজ খুব ভালো। স্বচ্ছ ও জবাবদিহিমূলক প্রশাসন গড়ার লক্ষ্যে এ মন্ত্রিপরিষদ সহায়ক হবে বলে অনেকেই মন্তব্য করবেন।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন[email protected]এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]