পরোকীয়া প্রেমিকের বিরুদ্ধে

নলছিটিতে ধর্ষণ মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন


ঝালকাঠি ॥ ঝালকাঠির নলছিটিতে গৃহবধূর সঙ্গে অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত থাকা অবস্থায় আটক পরকীয়া প্রেমিক মহিদুল হাসান হিরণের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়েরের প্রতিবাদে মানববন্ধন করা হয়েছে।

বুধবার সকালে নলছিটি প্রেস ক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধন থেকে ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে পরকীয়া প্রেমিক-প্রেমিকা উভয়কে আইনের আওতায় আনার দাবি জানানো হয়। অন্যথায় ‘মিথ্যা ধর্ষণ’ মামলাটি প্রত্যাহার করার আহ্বান জানান মানববন্ধনে অশংগ্রহণকারীরা।নলছিটির সচেতন নাগরিক সমাজের ব্যানারে মানববন্ধনে হিরণের বন্ধু, সহপাঠী ও ঘটনাস্থলে উপস্থিত লোকজন অংশ নেন।

মানববন্ধনে বক্তারা জানান, নলছিটি উপজেলার কাঠিপাড়া গ্রামের এক গৃহবধূ দুই সন্তানের জননী নলছিটি থানারপুল এলাকার অবিবাহিত যুবক মহিদুল হাসান হিরণের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে। তারা দুই দফায় পালিয়ে গিয়ে পাঁচ-ছয় মাস বাসা ভাড়া করেও থাকে। বিষয়টি স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপে সন্তানের কথা বিবেচনায় মীমাংসা করে দেওয়া হয়।এর পরেও পরোকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে সম্পর্ক রয়ে যায়। গত ১৭ অক্টোবর রাতে রাতে পরকীয়া প্রেমিক ওই গৃহবধূর শ্বশুর বাড়িতে গেলে স্থানীয়রা তাদের আটক করে পুলিশে তুলে দেয়। পরদিন সকালে ওই গৃহবধূকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ এনে হিরণের নামে মামলা দায়ের করে।

বক্তারা বলেন, পরকীয়ার ঘটনায় প্রেমিক হিরণ অপরাধ করলে সমান অপরাধী প্রেমিকাও। তাকেও আইনের আওতায় আনার দাবি জানানো হয়। অন্যথায় মামলাটি প্রত্যাহার করে হিরণের মুক্তির আহ্বান জানান বক্তারা।

এদিকে মামলার বাদী ওই গৃহবধূ জানায়, তাকে ধর্ষণের ঘটনার পরে শ্বশুর বাড়ির লোকজন দুজনকে আকসঙ্গে বসিয়ে অশ্লীল ভিডিও ধারণ ও ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়। এ ঘটনার পর শ্বশুর বাড়ির লোকজন তাকে বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। এখন তাকে গ্রহণ করতে চায় না তাঁর স্বামী। এতে মানসিকভাবে সে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে বলেও জানান।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]