১০ হাজার টাকা চুক্তিতে লিখিত পরীক্ষা!

নিয়োগ পরীক্ষায় জালিয়াতি, ভোলার হামিমসহ ৫ পরীক্ষার্থী শ্রীঘরে


নিয়োগ পরীক্ষায় জালিয়াতির দায়ে পাঁচ পরীক্ষার্থীকে পুলিশে সোপর্দ করেছে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়। শনিবার অফিস সহায়ক নিয়োগ পরীক্ষার সময় পাঁচ জন পরীক্ষার্থীকে আটক করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আটককৃত পরীক্ষার্থীরা হলো নেত্রকোনার আটপাড়া উপজেলার গরমা গ্রামের মোঃ আল মামুন তালুকদার, ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার দেওলা শিবপুর গ্রামের মোঃ হামিম, ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার বাঘুটিয়া গ্রামের মোঃ আকরাম হোসেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মজলিশপুর গ্রামের মোঃ তাকরিম আহমেদ ও ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ের বিরই গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে মোঃ আনোয়ার হোসেন।

মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, গত শুক্রবার বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের অফিস সহায়ক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা রাজধানীর ৮টি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয়। শনিবার এর মৌখিক পরীক্ষা নেওয়ার সময় এই পরীক্ষার্থীদের আচরণ এবং প্রশ্নের জবাবে পরীক্ষকের সন্দেহ হয়। এ সময় তাদের লিখিত পরীক্ষায় দেওয়া বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর জিজ্ঞাসা করলেও তার জবাব তারা মৌখিক পরীক্ষার সময় দিতে ব্যর্থ হন। এ সময় বোর্ডের সদস্যরা তাদের হাতের লেখা মিলিয়ে দেখেন উত্তরপত্রে উল্লেখিত হাতের লেখা তাদের নয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পরীক্ষার্থী মোহাম্মদ আল মামুন তালুকদার স্বীকার করেন, তার লিখিত পরীক্ষা দিয়েছেন জনৈক সৈকত জামান। অপর পরীক্ষার্থী মোঃ হামিম স্বীকার করেন, তার পরিবর্তে লিখিত পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন ভোলা জেলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার মোঃ কেফায়েত উল্লাহ খন্দকারের ছেলে মোঃ সুমন খন্দকার।

পরীক্ষার্থী মোঃ আকরাম হোসেন জানায় লিখিত পরীক্ষায় তার পরিবর্তে ফরিদপুর জেলার নগরকান্দা উপজেলার হারুন মাতুব্বরের ছেলে জুয়েল মাতুব্বর অংশ নেয়। পরীক্ষার্থী তাকরিম আহমেদ স্বীকার করে যে ১০ হাজার টাকার চুক্তিতে তার পরীক্ষা দিয়েছে জনৈক ওমর ফারুক। অপর পরীক্ষার্থী মোঃ আনোয়ার হোসেন স্বীকার করেন বিআরডিবিতে চাকুরীরত জনৈক আলমগীর কবির সরকারের মাধ্যমে একজনের সঙ্গে চুক্তি করেন। ঐ ব্যক্তি তার পরীক্ষা দিয়েছে।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]