পটুয়াখালীতে মারধরের ভয়ে পালাতে গিয়ে ফকিরের মৃত্যু


পটুয়াখালী : মারধরের ভয়ে খাল সাঁতরে পালাতে গিয়ে পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায় খালেক গাজী (৬৫) নামের এক ফকিরের মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার দুপুর ১টার দিকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের উত্তর কাজির হাওলা আশ্রয়ণ প্রকল্প থেকে তার লাশটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় সম্পৃক্ত সন্দেহে দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহত খালেক ফকির উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের ফুলখালী গ্রামের বাসিন্দা।

স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় ঝাড়-ফুঁক দিয়ে জিন ও ভূতের আসর থেকে মুক্তি দেয়াসহ নানা রোগের চিকিৎসা করতেন তিনি।

প্রায় এক মাস আগে পূর্ববাহেরচর গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে আল আমিনের ভূত ছাড়ানোর কথা বলে ২০ হাজার টাকা নেন খালেক ফকির। কিছুদিন ঝাড়-ফুঁক দিয়ে আল আমিনের চিকিৎসা চালালেও তার অবস্থার পরিবর্তন হচ্ছিল না। তাই সেই টাকা ওই ফকিরের কাছ থেকে ফেরত পেতে চাপ দিচ্ছিলেন আল আমিনের বাবা লাল মিয়া।

নিহত খালেক ফকিরের মেয়ে খালেদা বেগম বলেন, তার বাবাকে খুঁজতে দুইজন (লাল মিয়াসহ দুইজন) বাড়িতে আসেন। আশপাশের বাড়িতেও খুঁজছিল। বারবার বিষয়টির সমাধান করে দেওয়ার কথা বললেও গালিগালাজ করে তার বাবাকে মারধর করবে বলে খোঁজাখুঁজি করছিলেন। এসব কথা শুনে মারধরের ভয়ে তার বাবা খাল সাঁতরে পালাতে গিয়ে হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান।

পরে শনিবার দুপুরে ফুলখালী ও বাহেরচর গ্রামের খালের তীরের কাজির হাওলা আশ্রয়ণ প্রকল্পের পাড় থেকে খালেক ফকিরের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় এ ঘটনায় সম্পৃক্ত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ফুলখালী থেকে লাল মিয়া (৪৫) ও তার সঙ্গে থাকা মোটরসাইকেল চালক নাজমুলকে (২২) আটক করেছে পুলিশ। তাদের বাড়ি উপজেলার সদর ইউনিয়নের পূর্ববাহেরচর গ্রামে।

এ ব্যাপারে রাঙ্গাবালী থানার ওসি দেওয়ান জগলুল হাসান বলেন, এ ঘটনায় দুইজনকে আটক করা হয়েছে। রোববার লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী মর্গে পাঠানো হবে। আর তদন্তসাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]