পাখির জন্য গাছে হাড়ি বাঁধলেন প্রতিমন্ত্রী


বাবুগঞ্জ উপজেলার মাধবপাশায় অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী দুর্গাসাগরকে পাখিদের অভয়াশ্রম হিসেবে গড়ে তুলতে গাছে গাছে হাড়ি বেঁধে দেয়া হয়েছে। রোববার দুপুরে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে গাছে হাড়ি বাধা কার্যক্রমের উদ্বোধন করে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী অবসরপ্রাপ্ত কর্ণেল জাহিদ ফারুক শামীম-এমপি।

এর আগে প্রতিমন্ত্রী দুর্গাসার দীঘি পরিদর্শনে যান। তিনি দীঘির চার পাশ ঘুরে দেখেন। এসময় তিনি দুর্গাসগারকে পর্যটনের একটি বড় স্পট হিসেবে গড়ে তুলতে দুর্গাসাগরের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বজায় রেখে অবকাঠামো উন্নয়ন এবং পর্যটকদের আকর্ষণ করতে বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণের আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

পরে প্রতিমন্ত্রী পাখিদের অভয়াশ্রম হিসেবে গড়ে তোলার জন্য দুর্গাসাগর দীঘির চার পাশে গাছে হাড়ি বেধে পাখির অভয়াশ্রম হিসেবে গড়ে তোলার কাজের শুভ সূচনা করেন। এসময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান, বাবুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুজিত হালদার প্রমুখ।

জানাগেছে, বরিশাল বরিশাল শহর থেকে প্রায় ১২ কিলোমিটার উত্তরে বরিশাল-স্বরূপকাঠী আঞ্চলিক সড়কের মাধবপাশা এলাকায় অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী দুর্গাসাগর। এর শুধুমাত্র জলাভূমির আয়োতন ২৭ একর। সব মিলিয়ে এর আয়োতন ৪৫ দশমিক ৪২ একর। দীগির মাঝখানে রয়েছে গাছ-গাছালিতে ভরপুর একটি দৃষ্টিনন্দন দীপ।

১৭৮০ সালে চন্দ্রদ্বীপের পঞ্চদশ রাজা শিব নারায়ন এই বিশাল জলাধারটি খনন করেছিলেন। তার স্ত্রী দুর্গামতির নামানুসারে খনন করা দুর্গাসাগর ১৯৭৪ সালে তৎকালিন সরকারের উদ্যোগে দীঘিটি পুনঃসংস্কার করা হয়। বর্তমানে ‘দুর্গাসাগর দীঘি উন্নয়ন ও পাখিদের অভয়ারন্য’ নামে একটি প্রকপ্লের অধিনে জেলা প্রশাসন দীঘিটির তত্ত্বাবধান করছেন।

বরিশাল জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান জানান, দুর্গাসাগরকে পাখিদের অভয়াশ্রম ও উন্নয়নের লক্ষ্যে ব্যাপক পরিকল্পনা রয়েছে। যা বাস্তবায়নে এরই মধ্যে পর্যটন মন্ত্রনালয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে। চলতি মাসেই দুর্গা সাগর উন্নয়নে বড় একটি প্রকল্প অনুমোদন হয়ে আসার কথা রয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।


বরিশালট্রিবিউন.কম’র (www.barisaltribune.com) প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।