প্রতিহিংসার রাজনীতি বন্ধ করতে নিজেদের সংশোধন হওয়া প্রয়োজন

  • 5
    Shares

প্রতিহিংসার রাজনীতি বন্ধ করতে আগে নিজেদেরই সংশোধন হওয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মুজিবুল হক চুন্নু।

সম্প্রতি একটি বেসরকারি টেলিভিশনের সরাসরি টক শো অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে সঞ্চালকের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা বিভিন্ন সময় যখন কথা বলি, তখন প্রতিহিংসার রাজনীতির মতই কথা বলি। বিশেষ করে আওয়ামী লীগ এবং বিএনপির নেতারা এক দল আরেক দলকে উদ্দেশ্য করে যখন কথা বলেন, তখন কিন্তু তারা মাত্রা জ্ঞান রাখেন না। আবার তারাই বলেন প্রতিহিংসার রাজনীতি করা উচিত না।

অ্যাডভোকেট মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, প্রতিহিংসার রাজনীতি আমরা করবো না-এটাই আগে ঘোষণা হওয়া উচিত বলে আমি মনে করি। কোন দল অথবা নেতা নিজেরাই এটা মেনে নিয়ে আরেক দলকে বলা প্রয়োজন।

জাতীয় পার্টির এ নেতা বলেন, আমি প্রতিহিংসার রাজনীতি করবো, আবার বলব; আমরা প্রতিহিংসার রাজনীতি করবো না, একসাথে মিলেমিশে কাজ করবো। না, এটা হয় না। কিন্তু আমরা যখন নিজেরা সংশোধন হব তখনই এটা বাস্তবায়ন হবে।

তিনি আরও বলেন, প্রতিহিংসার রাজনীতি আমাদের করা উচিত না। আমরা যদি সত্যিই গণতন্ত্রের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হই, আমরা যদি আসলেই দেশকে এগিয়ে নিতে চাই তাহলে প্রতিহিংসার রাজনীতিকে বাদ দেয়া উচিত।

পাবনার ঈশ্বরদীতে ২৫ বছর আগে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রেনে বোমাহামলা ও গুলিবর্ষণের মামলার রায়কে ‘সরকারের ফরমায়েশি রায়’ বলে বিএনপি যে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে সে বিষয়ে তিনি বলেন, ফরমায়েশি রায় বলে বিচার বিভাগের উপর এখানে অনাস্থা আনা হয়েছে।

তিনি বলেন, এরশাদ সাহেবের (জাপা চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ) বিরুদ্ধেও অনেক মামলা হয়েছে। উনার সাজাও হয়েছিল। কিন্তু তিনি এ সমস্ত (ফরমায়েশি রায়) কথা কখনো বলেননি এবং আমরাও বলিনি।

তিনি আরও বলেন, আসলে আমাদের এখন মন মানসিকতা এমন হয়েছে যে, পক্ষে গেলেই বলা হয় ন্যায় বিচার হয়েছে। এটা বিএনপি কেন, আওয়ামী লীগও বলে। আর বিপক্ষে গেলেই…আমাদের সেই কালচার থেকে বের হয়ে আসতে হবে।


  • 5
    Shares

[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]