ফেসবুকে বন্ধ হচ্ছে গ্রুপ চ্যাট


জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের ম্যাসেঞ্জারে চার-পাঁচজন কিংবা তার চেয়ে বেশি মানুষ মিলে গ্রুপ চ্যাটও করে থাকেন। এভাবে গ্রুপ স্টাডিও চলে। আড্ডা কিংবা অফিসিয়াল কাজেও ব্যবহার করা হয় এই গ্রুপ চ্যাট।

ফেসবুক ব্যবহারকারীদের জন্য দুঃসংবাদ হলো, আগামী ২২ আগস্ট থেকে এ সেবা বন্ধ করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এর পরও গ্রুপের আগের চ্যাটগুলো দেখা যাবে।

শনিবার ‘কমিউনিটি লিডারশিপ সার্কেল ফ্রম ফেসবুক’ এক পোস্টে এ তথ্য নিশ্চিত করে। এতে বলা হয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যে অবকাঠামো মেনে তৈরি করা হয়েছে, তার সঙ্গে ফেসবুকের গ্রুপ চ্যাট ফিচারটি মানানসই নয়। তাই ফেসবুক ব্যবহারকারীদের তথ্য সুরক্ষা ও নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনায় রেখে এটি বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। তা বন্ধ হলেও ফেসবুকে বন্ধু তালিকায় (ফ্রেন্ডলিস্টে) থাকা বন্ধুদের সঙ্গে গ্রুপ চ্যাট করা যাবে। বন্ধু তালিকায় নেই এমন বন্ধুরা গ্রুপে যুক্ত হতে পারবে না।

কমিউনিটি লিডারশিপ সার্কেল ফ্রম ফেসবুকের পেজে লেখা হয়েছে, তাৎক্ষণিক যোগাযোগের জন্য গ্রুপ চ্যাটে আগামীতে নতুন কিছু করা যায় কি-না সে ব্যাপারে চিন্তাভাবনা চলছে। তবে তা কী ধরনের হবে এ নিয়ে এখনই বলা যাচ্ছে না।

ফেসবুক ম্যাসেঞ্জার ২০০৮ সালে চালু করা হয়। ২০১০ সালে এটা সংস্কার করে ফের চালু করা হয়। স্কাইপকে তাদের প্রযুক্তি অংশীদার করে ২০১১ সালের ৬ জুলাই ফেসবুকের ভিডিও কল সেবা চালু করা হয়। এরপর ২০১১ সালের ৯ আগস্ট আনুষ্ঠানিকভাবে অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস অ্যাপে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জার চালু করা হয়। আর ফেসবুকে গ্রুপ চ্যাট চালু হয় ২০১৩ সালে।


বরিশালট্রিবিউন.কম’র (www.barisaltribune.com) প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।