বগুড়া সদর আসনে উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে

  • 15
    Shares

বগুড়া-৬ (সদর) আসনের উপ-নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। সোমবার (২৪ জুন) সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়, চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। এ আসনের ১৪১টি কেন্দ্রের সবগুলোতে ভোটাররা প্রথমবারের মতো ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোট দিচ্ছেন। তবে কেন্দ্রগুলোতে ভোটার উপস্থিতি কম। ভোট শুরুর পর কোথাও কোনো অপীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

নির্বাচন উপলক্ষে বগুড়ায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সাড়ে তিন হাজার সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

নির্বাচনের মাঠে ছয়জন প্রার্থী থাকলেও মূল লড়াই হবে বড় দুই দল আওয়ামী লীগ এবং বিএনপির দলীয় প্রতীক নৌকা ও ধানের শীষের প্রার্থীদের মধ্যে। ধানের শীষের প্রার্থী জিএম সিরাজ এর আগে বগুড়ার অন্য একটি আসন থেকে বিএনপির মনোনয়নে টানা তিন দফা সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলেও নৌকার প্রার্থী টি জামান নিকেতা এবারই প্রথম সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রচারণায় সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে নৌকায় ভোট চাওয়া হয়েছে। অন্যদিকে দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি, তারেক রহমানকে দেশে ফেরানো ছাড়াও জিয়া পরিবারের অত্যন্ত মর্যাদার এই আসন ধরে রাখতে ধানের শীষে ভোট চাইছে বিএনপি। তবে দুই দলই এবারের এই নির্বাচনকে মর্যাদার লড়াই হিসেবে দেখছে। ভোটারদের কাছেও ভোট প্রার্থনা করা হয়েছে সেভাবেই।

এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের টি জামান নিকেতা (নৌকা), বিএনপির গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টির নুরুল ইসলাম ওমর (লাঙ্গল), মুসলিম লীগের রফিকুল ইসলাম (হারিকেন), বাংলাদেশের কংগ্রেসের মুনসুর রহমান (ডাব) ও মিনহাজ মণ্ডল (আপেল) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

জেলা পুলিশের বিশেষ শাখা সূত্রে জানা গেছে, বগুড়া-৬ (সদর) আসনের নির্বাচনে ১১১টি কেন্দ্র ‘অতি গুরুত্বপূর্ণ বা ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এসব ভোটকেন্দ্রে যেকোনো ধরনের গোলযোগ ও সহিংসতা এড়াতে তিন স্তরের নিরাপত্তাবলয় প্রস্তুত করার কথা জানিয়েছেন বগুড়ার পুলিশ সুপার মো. আলী আশরাফ ভূঞা। প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবিসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তিন স্তরের কঠোর নিরাপত্তাবলয় থাকবে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে কাজ করবেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা।

বগুড়া সদর উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন এবং ১টি পৌরসভার ২১টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত বগুড়া-৬ আসন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রায় সাড়ে তিন হাজার সদস্য কাজ করবেন। এর মধ্যে প্রায় ১ হাজার পুলিশ, ৪০০ বিজিবি সদস্য, র‌্যাবের ৪৫০ সদস্য এবং ১ হাজার ৭০০ আনসার সদস্য রয়েছেন।

বগুড়া সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকতা এসএম জাকির হোসেন জানান, শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণের জন্য ১৪১ জন প্রিসাইডিং অফিসার, ৯৫৪ জন পোলিং অফিসারসহ প্রায় ৩ হাজার নির্বাচন কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়েছে।

বগুড়ার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) আব্দুল মালেক গণমাধ্যমকে জানান, ‘বিজিবি সদস্যরা নির্বাচন ও নির্বাচন পরবর্তী সময় আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে রাখতে কাজ করবেন।’

নির্বাচন কমিশন জানায়, ভোট সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া সদর আসন থেকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বিজয়ী হন। তিনি ধানের শীষ প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে প্রায় দেড় লাখ ভোটের ব্যবধানে মহাজোটের প্রার্থী নুরুল ইসলাম ওমরকে হারিয়ে বিজয়ী হন। কিন্তু তিনি ‌‌‌নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে শপথ গ্রহণ না করায় আসনটি শূন্য ঘোষণা করে উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী এই আসনে আজ ইভিএমে ভোটগ্রহণ চলছে। নির্বাচনে ৩ লাখ ৮৭ হাজার ৪৫৮ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।


  • 15
    Shares

[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]