বরিশালে অফিস কক্ষে আটকে সহকারী রেজিস্ট্রারকে পেটালো ইন্টার্ন চিকিৎসকরা


বরিশাল : শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের চিকিৎসককে মারধরের ঘটনায় শিক্ষানবিশ ১০ জন ছাত্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে।

আজ (২১ অক্টোবর) বুধবার শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক বরাবর লিখিত অভিযোগ দেন নির্যাতনের শিকার মেডিসিন ইউনিট-৪ এর সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. মো. মাসুদ খান। তিনি এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার এবং জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনি ও একাডেমিক পদেক্ষপ নেয়ার জন্য আবেদন জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের (বিএমএ) বরিশাল জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডা. মনিরুজ্জামান শাহীন মনে করেন, ইন্টার্ন চিকিৎসকরা একজন চিকিৎসকের গায়ে হাত দিবে এটা মেনে নেওয়া যায় না। অবশ্যই হামলাকারীদের বিচার হওয়া উচিত।

শেবাচিম হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ বাকির হোসেন জানিয়েছেন, অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগ্র প্রাপ্তির পরপরই চিকিৎসক নেতাদের সাথে আলাপ করেছি। আমরা ঘটনার মূল কারন ও হামলাকারীদের শনাক্তের চেষ্টা করছি।

জানা গেছে, মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) দুপুর আড়াইটার দিকে মেডিসিন বিভাগের ইউনিট-৪ এর অফিসে সহকারী রেজিস্ট্রার ডাঃ মাসুদ খানের কক্ষে ইন্টার্ন চিকিৎসক সজল পান্ডে ও তরিকুল ইসলামের নেতৃত্বে ঢোকেন পঞ্চম বর্ষের ৮/১০ জন। তারা মাসুদ খানের মুখ ও হাত বেধে মারধর করতে থাকেন। মাসুদ খান আত্মরক্ষার্থে চিৎকার করার চেষ্টা করলে কক্ষ ভেতর থেকে আটকে ওই ১০ জন ইন্টার্ন চিকিৎসক পুনরায় মারধর করতে থাকেন। এসময়ে তিনি তার ছোটছোট ছেলেমেয়েদের দোহাই দিয়ে মারধর বন্ধ করতে অনুরোধ করেন। কিন্তু সজল পান্ডে ও তরিকুল ইসলামের নেতৃত্বাধীন হামলাকারীরা অনুনয় না শুনে বেদম মারধর করে চলে যান।

আবেদনের অনুলিপি শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ এবং সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় প্রধান বরাবর দেয়া হয়।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]