বরিশালে ঈদের নামাজে দেশ ও জাতির অগ্রগতি কামনা

  • 25
    Shares

ধর্মীয় ভাবগাম্ভির্যর মধ্য দিয়ে দেশের সমৃদ্ধি অব্যাহত রাখা এবং দেশ ও জাতির অগ্রগতি কামনায় দোয়া মোনাজাতের মধ্য দিয়ে বরিশালে হেমায়েত উদ্দিন কেন্দ্রিয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদুল আজহার প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার (১২ আগস্ট) সকাল ৮ টায় অনুষ্ঠিত এই জামাতে বিভিন্ন রাজনৈতিক-সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, প্রশাসনের বিভিন্নস্তরের কর্মকর্তাবৃন্দসহ নানান শ্রেনী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

ষ্টীমার ঘাট জামে মসজিদের খতিব মাওলানা শিহাব উদ্দিন বেগ এর ইমামতিতে হেমায়েত উদ্দিন কেন্দ্রিয় ঈদগাহ ময়দানে নামাজ আদায় করেন বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ, বরিশালের বিভাগীয় কমিশনার মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী, জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমান, বরিশাল জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সাংসদ অ্যাডভোকেট তালুকদার মোঃ ইউনুস, বরিশাল সদর উপজেলার চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টুসহ আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জাতীয়পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

নামাজের পূর্বে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করে বক্তব্য রাখেন বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ, বরিশালের বিভাগীয় কমিশনার মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী, জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমান।

বিভাগীয় কমিশনার মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী তার বক্তব্যের শুরুতে পনেরই আগস্টে জাতির জনকসহ অন্য শহীদদের আত্মার শান্তি কামনা করেন। এসময় তিনি দেশ ও জাতির অগ্রগতি কামনা করে বলেন, ত্যাগের মহিমায় কোরবানি দিয়ে প্রত্যেকের উচিত অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সহায়তা করা।

এসময় তিনি বলেন, দেশে সম্প্রতি সময়ে নানান বিষয় নিয়ে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। যাতে কান না দিয়ে সকলকে সচেতন হওয়ার আহবান জানান তিনি। ডেঙ্গুর আক্রমন নিয়ে তিনি বলেন, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা ঈমানের অঙ্গ। ডেঙ্গুসহ মশার বংশবিস্তার রোধে নিজের বাড়ি ও আশপাশ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান। পাশাপাশি এসময় তিনি দেশের সমৃদ্ধি, ধর্মীয় সম্প্রিতী অব্যাহত রাখতে সবার প্রতি আহবান জানান।

অপরদিকে সকাল সাড়ে ৮টায় বরিশাল সদর উপজেলার চরমোনই পীরের দরবার শরীফে ঈদের সর্ব বৃহৎ জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া বরিশাল জেলার উজিরপুর উপজেলার গুঠিয়া বায়তুল আমান জামে মসজিদ ও ঈদগাহ কমপ্লেক্সে বৃহৎ ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

তবে নগরে সর্বোপ্রথম সকাল সাড়ে ৭ টায় জেল গেট জামে মসজিদে ল’কলেজ জামে মসজিদ ও মেডিকেল কলেজ জামে মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া কেন্দ্রীয় জামে কসাই মসজিদ, জামে এবাদুল্লাহ মসজিদ, পুলিশ লাইনস্ জামে মসজিদ, নরিয়া স্কুল ঈদগাহ ময়দান ও জামে বায়তুল মোকাররম মসজিদে দুটি করে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

অপরদিকে দ্বিতীয় জামাতের মধ্যদিয়ে বরিশাল নগরের সর্বশেষ ঈদের জামাত সকাল সাড়ে ৯ টায় কেন্দ্রীয় জামে কসাই মসজিদ ও জামে এবায়েদুল্লাহ মসজিদে অনুষ্ঠিত হয়।

জাতীয় ইমাম সমিতি বরিশাল মহানগর শাখার সভাপতি আলহাজ্ব মাওলানা কাজী আব্দুল মান্নান জানান, এর বাহিরে বরিশাল মহনগরে সাড়ে ৪ শত মসজিদ রয়েছে। যার মধ্যে ৩ শতাধিক মসজিদে ঈদের জামাত সকাল ৮ টা থেকে ৯ টার মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়।

এদিকে বরিশাল বিভাগের দ্বিতীয় বৃহত্তম ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয় পিরোজপুরের ছারছিনা দরবার শরীফ ময়দানে এবং তৃতীয় বৃহত্তম ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয় ঝালকাঠীর এনএস কামিল মাদ্রাসা সকাল ৮টায়। এছাড়াও পটুয়াখালীর মীর্জাগঞ্জ হযরত ইয়ারউদ্দিন খলিফা (রা.) মাজার শরীফে সকাল সাড়ে ৭টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

ঈদের জামাত ও পশু কোরবানিকে ঘিরে স্থানীয় প্রশাসন নিজস্ব কৌশলে নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করেছে।


  • 25
    Shares

বরিশালট্রিবিউন.কম’র (www.barisaltribune.com) প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।