বরিশাল-ঢাকা নৌ-রুটে ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রির কার্যক্রম শুরু


বরিশাল: আসন্ন ঈদ উল ফিতরকে সামনে রেখে বরিশাল-ঢাকা নৌ রুটে লঞ্চগুলোতে বিশেষ সার্ভিসের প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির অগ্রিম টিকিট বিক্রির কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

যারমধ্যে ১২ মে থেকে ঈদের বিশেষ সার্ভিসের অগ্রিম টিকিটের জন্য যাত্রীদের কাছ থেকে চাহিদাপত্র বা আবেদন সংগ্রহ করছে সুরভী লঞ্চ কোম্পানি।   এ আবেদন গ্রহনের কার্যক্রম চলবে আগামী ১৬ মে পর্যন্ত। এরপর যাচাই-বাছাই শেষে নির্দিষ্ট প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে বিশেষ সার্ভিসের কেবিন ও সোফার টিকিট যাত্রীদের মাঝে বিতরণ করা হবে।

অপরদিকে ১১ মে থেকে  সরাসরি যাত্রীদের কাছে স্পেশাল সার্ভিসের টিকিট বিক্রির কার্যক্রম শুরু করেছে এ্যাডভেঞ্চার লঞ্চ কোম্পানি।

এদিকে সুন্দরবন নেভিগেশন কোম্পানির চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু জানিয়েছেন, বরিশাল-ঢাকা নৌ রুটের চলাচলরত তাদের ৩টি লঞ্চে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির টিকিট বিক্রি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এজন্য পূর্বের মত করেই আবেদন নেয়া হচ্ছে। পরে যাচাই বাছাই করে টিকিট নির্দিষ্ট প্রক্রিয়ার মাধ্যমে যাত্রীদের হাতে দেয়া হবে।

সালমা শিপিং কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মঞ্জুরুল আহসান ফেরদৌস জানান, এমভি কীর্তনখোলা, এমভি মানামী, এমভি টিপু ও গ্রীনলাইন সহ অন্যান্য লঞ্চ কোম্পানিগুলো নগদ ভিত্তিতে ঈদ সার্ভিসের টিকিট বিক্রি শুরু করেছে। যারা আগে আসছেন তারাই এসব লঞ্চের টিকিট পাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট লঞ্চ কোম্পানি কর্তৃপক্ষ।

তবে লঞ্চ কোম্পানি গুলোর সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, ঈদে টিকিট বা আগে আসার ভিত্তিতে টিকিট বিক্রি করা হলেও যারা নিয়মিত যাত্রী তাদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে। এর পর নতুন যাত্রীদের বিষয় বিবেচিত হবে।

উল্লেখ্য, এবারের ঈদে বরিশাল-ঢাকা নৌ রুটে সরাসরি ২৩টি বেসরকারি যাত্রীবাহি লঞ্চ চলাচল করবে। এর মধ্যে গ্রীন লাইন ওয়াটার ওয়েজ কোম্পানির দুটি ও এ্যাভেঞ্চার কোম্পানির একটি জাহাজ দিবা সার্ভিসে চলবে।


বরিশালট্রিবিউন.কম’র (www.barisaltribune.com) প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।