বুলবুল আছড়ে পড়লেই বরিশাল বিভাগের ২০৯৪ স্কুল রুপ নেবে আশ্রয়নে


সৈয়দ মেহেদী হাসান : এ যাবৎকালে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়সমূহের মধ্যে সর্বাপেক্ষা শক্তিশালী ঘূর্নিঝড় ছিল সিডর। ২০০৭ সালের ১৫ই নভেম্বর ঘূর্ণিঝড়টি বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চল বরগুনা, পটুয়াখালী, পিরোজপুর, ভোলা জেলা তছনছ করে মৃত্যুপুরী বানিয়ে দিয়ে যায়। সিডর আঘাতের সময় বাতাসের সর্বোচ্চ গতিবেগ ছিল ঘন্টায় প্রায় ২৬০ কিমি সাফাইর-সিম্পসন অনুযায়ী ৫ মাত্রার ঘূর্ণিঝড়ের সমতুল্য। ঘূর্ণিঝড় এবং তদুপরি জলোচ্ছাসের প্রভাবে প্রায় দশ সহস্রাধিক মানুষ প্রাণ হারায়। বরগুনা, পটুয়াখালী এবং ঝালকাঠি এই তিনটি জেলা একেবারে ৫ মি (১৬ ফুট) উচূঁ ঢেউয়ের আঘাতে সম্পূর্ণ তলিয়ে যায়। আর এই তিনটি অঞ্চলেই মৃতের সংখ্যা সর্বাধিক প্রায় পাঁচ শতাধিক। মাছ ধরার নৌকাসহ তিন সহস্রাধিক জেলে নিখোঁজ হয়। শত শত ঘড়বাড়ি, স্কুল বাতাসের তোড়ে উড়ে যায় এবং গাছপালার বিপুল পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি সাধিত হয়।আবার পরীক্ষার মুখে বাংলাদেশ। আজ শনিবার সন্ধ্যা কিংবা মধ্যরাতে আবারও তেমনই একটি অতি ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড় বাংলাদেশের ওপর দিয়ে বয়ে যাবে। আবহাওয়া বিভাগ বলছে, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের গতি থাকবে সিডরের কাছাকাছি, ঘণ্টায় ১২৫ কিলোমিটার!

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ প্রবল থেকে অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে ইতিমধ্যে। গতকাল সন্ধ্যায় পায়রা সমুদ্রবন্দর এলাকা থেকে এটি ৪৯০ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করছিল। পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। আবহাওয়া অদিদফতর জানিয়েছে, বরিশাল বিভাগের অতিঝুঁকিতে থাকা উপকূলীয় জেলা পটুয়াখালী-ভোলা-বরগুনা ও পিরোজপুরের ওপরে আছড়ে পড়তে পারে। আজ শনিবার (৯ নভেম্বর) সন্ধ্যার পরে বাংলাদেশের সুন্দরবন ও তার আশেপাশের জেলা-উপজেলায় মূল আঘাত হানবে। এতে অপরিমেয় ক্ষতি হবে দক্ষিণাঞ্চলের। পরিবেশ ও প্রাণ-প্রকৃতির ভারসাম্য নষ্ট হবে। অধিদফতর জানিয়েছে, বিগত পর্যবেক্ষণে মনে হচ্ছে ১২৫ থেকে ১৩০ কিলোমিটার বেগে উপকূলে আছড়ে পড়বে বুলবুল। এর আগে ভারতের কয়েকটি প্রদেশে আঘাত হানার শঙ্কা প্রকাশ করা হচ্ছে। এ কারণে ৫ থেকে ৭ ফুট পর্যন্ত উচ্চতার জলোচ্ছ্বাস হতে পারে। এ অবস্থায় উপকূলবর্তী এলাকার জনগণকে সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ ধেয়ে আসছে উপকূলের দিকে, আপাতত এর গতিমুখ সুন্দরবনের দিকে। আজ শনিবার বিকেলের পর বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় ঝড়ের প্রভাব অনুভূত হতে পারে। মধ্যরাতে খুলনা অঞ্চল দিয়ে বুলবুল উপকূল অতিক্রম করতে পারে।

বরিশালে দফায় দফায় জরুরী সভা

বরিশালের জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান জানিয়েছেন, ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ আঘাত হানার আগেই বরিশালের নদী তীরবর্তী চরাঞ্চল ও নিম্নাঞ্চলের মানুষদের সাইক্লোন শেল্টারগুলোতে আশ্রয় নিতে মাইকিং করা হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি বিষয়ে জরুরি সভায় এই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। বরিশাল জেলায় ২৩২টি আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সেখানে এক লাখ ২৫ হাজার লোকের আশ্রয়ের ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়াও সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মানুষ আশ্রয় নিতে পারবে বলে সেগুলো খোলা রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অজিয়র রহমান বলেন, সিপিপি, রেডিক্রিসেন্টসহ বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সেচ্ছাসেবকরা প্রস্তুত রয়েছেন। পাশাপাশি আইন শৃঙ্খলা বাহিনী, ফায়ার সার্ভিস ও রোভার স্কাউটের সদস্যরাও যে কোন ধরনের সহায়তা করবে। তিনি বলেন, সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় সার্বিক খোঁজ খবর রাখছে। আমরা এরইমধ্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের সাথে প্রস্তুতিমূলক সভা করেছি। তিনি বলেন, ২ শত মেট্রিকটন চাল, শুকনো খাবারসহ প্রয়োজনীয় ত্রাণ সামগ্রী মজুদ আছে। আমরা ঘুর্ণিঝড়ের সতর্ক বার্তা দেখে সবাইকে নিরাপদ আশ্রয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করবো, তবে সবার জন্য বলবো-কেউ যেন ঝুঁকি নিয়ে অনিরাপদ আশ্রয়ে না থাকেন।
সিপিপির বরিশালের আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. আব্দুর রশীদ জানিয়েছেন, বরিশাল জোনে ৬ হাজার ১৫০ জন স্বেচ্ছাসেবককে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় বিষয়ে জনসাধারণকে অবগত করার জন্য সংশ্লিষ্ট স্থানসমূহে পতাকা টানানো হয়েছে। স্বেচ্ছাসেবকরা ইতিমধ্যে নদীতীরবর্তী এলাকায় মাইকিং করে জনসচেতনতা সৃষ্টি করছেন। এছাড়াও বরিশাল জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। যার নাম্বার-০১৭৪১১৯৬৯৩৯ ও ০৪৩১৬৩৮৬৩।

পিরোজপুরে আতংক

পিরোজপুর জেলায় তিন দফায় জরুরী সভা করেছে জেলা প্রশাসন। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) নাহিদ ফারজানা সিদ্দিকী জানিয়েছেন, পিরোজপুরে বুলবুল মোকাবেলায় সর্বাত্মক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। এই জেলায় সরকারি ২০৫ টি ও বেসরকারি ২৩টি সাইক্লোন শেল্টা প্রস্তুত করা হয়েছে। এছাড়াও সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আপতকালীন সময়ের জন্য খোলা রাখার জন্য বলা হয়েছে। তিনি জানান, ১৭০টি মেডিকেল টিম ও সকল কমিউনিটি সেন্টার খোলা রাখা হয়েছে। স্বেচ্ছাসেবক রয়েছেন ১০০০। নাহিদ ফারজানা সিদ্দিকী বলেন, পিরোজপুরে পর্যাপ্ত ত্রাণ সহায়তা মজুদ রয়েছে। যারমধ্যে ১১ লাখ ৯০ হাজার নগদ টাকা ও সাড়ে তিন শ’ মেট্রিকটন চাল রয়েছে।

প্রস্তুত ভোলাবাসী

আগে থেকেই পূর্বাভাস পাওয়ায় ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ মোকাবিলায় ভোলায় সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিয়েছে জেলা প্রশাসন। গতকাল সকালে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে ঘূর্ণিঝড়ের বিষয়ে জরুরি সভা করে। জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম ছিদ্দিক বলেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। প্রস্তুত রাখা হয়েছে ১৩ হাজার স্বেচ্চাসেবী। জেলার ৬৪৮টি আশ্রয়কেন্দ্র খুলে দেওয়া হয়েছে। গঠন করা হয়েছ ৯২টি মেডিক্যাল টিম। এছাড়াও জেলা সদরসহ সাত উপজেলায় ৮টি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। মানুষর্কে সতর্ক করতে উপকূলে চলছে প্রচারণা। এছাড়াও মজুদ রাখা হয়েছে ত্রাণ। ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচি (সিপিপি) ভোলার উপ-পরিচালক সাহাবুদ্দিন বলেন, ঝড়ের বিষয়ে মানুষকে জানাতে সিপিপি ও রেডক্রিসেন্ট কর্মীরা প্রচার-প্রচারণা শুরু করে দিয়েছেন। সিপিপির ১০ হাজার ২শ’ স্বেচ্চাসেবী প্রস্তুত রয়েছে। এদিকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে সকাল থেকে জেলায় বৃষ্টি হচ্ছে। কোথায় কোথায় আবার ভারী বর্ষণ হয়েছে। পুরো জেলা মেঘাচ্ছন্ন। নদী এবং সাগর উত্তাল হয়ে উঠেছে। অনেক জেলে তীরে চলে এসেছেন।

পটুয়াখালীতে খোলা ৪০৩ আশ্রয়ন

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে পটুয়াখালী জেলা প্রশাসন। গতকাল বেলা ১১টার দিকে পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক দুর্যোগ প্রস্তুতি বিষয়ে জরুরি সভায় একথা জানিয়েছেন। সভায় জানানো হয়, ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় জেলার বিভিন্ন উপজেলায় ৪০৩টি সাইক্লোন শেল্টার প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সার্বিক বিষয় মনিটরিং করতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। দুর্যোগে ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ১০০ মেট্রিকটন চাল, ২ লাখ ৭৫ হাজার টাকা, ১৬৬ বান্ডিল টিন এবং ৩৫০০ কম্বল মজুত রাখা হয়েছে। পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসক মতিউল ইসলাম চৌধুরী জানান, ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

বরগুনায় ৫০৯ সাইক্লোন সেল্টার প্রস্তুুত

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’র আঘাত মোকাবেলায় বরগুনা জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা প্রশাসক মোঃ মোস্তাইন বিল্লার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় রেডক্রিসেন্ট, সিপিবি, দুর্যোগ ব্যবস্থা কমিটি, ইউপি চেয়ারম্যান, গণমাধ্যম প্রতিনিধিও সামাজিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভায় জানানো হয়, প্রতিটি খেয়াপাড়াপাড়ে ইতোমধ্য সতর্কতাসহ নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। দ্রুত উদ্ধার কাজের জন্য ট্রলার সহজ নৌযান প্রস্তত রাখা হয়েছে। জেলায় ৩ লক্ষাধিক দুর্যোগের কবলিত মানুষের আশ্রয়ে জন্য ৫০৯ সাইক্লোন সেল্টার প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়া ব্যক্তিগত বসত ভবন আশ্রয়ের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে। শুকনা খাবার প্রস্তুত রাখা হয়েছে প্রয়োজনে যাতে তাৎক্ষণিক সরবরাহ করা যায়। সিভিল সার্জন ডাঃ হুমাউন শাহিন খান জানান, প্রতিটি উপজেলায় চিকিৎসার জন্য একাধিক মেডিকেল টীম প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

ঝালকাঠিতে ৭৪ আশ্রয়ন

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ মোকাবিলায় ঝালকাঠিতে প্রস্তুতিসভা করেছে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি। গতকাল বিকেলে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী। জেলা প্রশাসক বলেন, জেলার ৭৪টি সাইক্লোন শেল্টার প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়া জরুরি প্রয়োজনে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ভবনগুলো ব্যবহার করা হবে। এছাড়া চাল-শুকনো খাবারসহ পর্যাপ্ত ত্রাণ সামগ্রী রয়েছে। মেডিক্যাল টিম, উদ্ধারকারী দল প্রস্তুত রয়েছে। জেলার বিভিন্ন হাসপাতাল ও স্বাস্থ্যকেন্দ্রে জরুরি সেবাদানের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন, রেডক্রিসেন্ট ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার (এনজিও) তিন হাজার স্বেচ্ছাসেবক প্রস্তুত রয়েছে। জরুরি প্রয়োজনে ৫টি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। জেলাজুড়ে সতর্কতামূলক প্রচার-প্রচারণা চালানো হয়েছে।

লঞ্চ পারাপার বন্ধ

বৈরী আবহাওয়ার কারণে বরিশালের অভ্যন্তরীণ সব রুটের লঞ্চ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে বিআইডব্লিউটিএ। গতকাল সকাল থেকে ১ নম্বর সর্তক সংকেতের মধ্যে লঞ্চ চলাচল করলেও বিকেল সোয়া ৫টায় লঞ্চ চলাচল বন্ধ করে দেন বরিশাল নদী বন্দর কর্মকর্তা (যুগ্ম পরিচালক) আজমল হুদা মিঠু সরকার। তিনি জানান, বৈরী আবহাওয়ার পাশাপাশি বরিশাল নদী বন্দরে ২ নম্বর সতর্ক সংকেত জারি করেছে আবহাওয়া অফিস। তাই পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত অভ্যন্তরীণ সব রুটের ছোট লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকবে।

কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ মোকাবিলায় সরকার সংশ্লিষ্ট ২২টি মন্ত্রলণালয়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ জেলা-উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। গতকাল বিকেলে সচিবালয়ে ঘুর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ মনিটরিং সেলের সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান একথা জানান। এনামুর রহমান বলেন, এরইমধ্যে সাইক্লোন সেন্টারসহ উপকূলের আশ্রয় কেন্দ্রগুলো প্রস্তুত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রতিটি সাইক্লোন সেন্টারে দুই হাজার প্যাকেট করে শুকনো খাবার ও নগদ পাঁচ লাখ করে টাকা পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এনামুর রহমান জানান, এর প্রভাবে ৫ থেকে ৭ ফুট পর্যন্ত জলোচ্ছ্বাস হতে পারে। ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ চলাকালীন ও ঘূর্ণিঝড় শেষে উদ্ধারকার্যসহ যেকোনো সহায়তার জন্য প্রস্তুত আছে কোস্ট গার্ড। জরুরি সহায়তার জন্য নিম্নোক্ত ফোন নম্বরগুলোতে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে- বরিশাল বিভাগ-০১৭৬৬৬৯০৬০৩, খুলনা বিভাগ-০১৭৬৬৬৯০৩৮৩, চট্টগ্রাম বিভাগ-০১৭৬৬৬৯০১৫৩ এবং অতিরিক্ত -০১৭৬৬৬৯০০৩৩। এদিকে সাতটি জেলা ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের অতিঝুঁকিতে আছে। জেলাগুলো হলো- খুলনা, সাতক্ষীরা, বরগুনা, বাগেরহাট, পটুয়াখালী, পিরোজপুর ও ভোলা।

কুয়াকাটায় জেলে নিখোঁজ

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর প্রভাবে কুয়াকাটাসংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে ঢেউয়ের তাণ্ডবে ট্রলার থেকে পড়ে নিখোঁজ হয়েছেন মো. বেল্লাল নামের (৪০) এক জেলে। গতকাল সকালে তীরে ফেরার পথে ‘এফবি মা কুলসুম’ নামের ট্রলারের ওই জেলে ঢেউয়ের ঝাপটায় সাগরে পড়ে যান। সাগর উত্তাল থাকায় তাঁকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছেন ট্রলালের মাঝি মো. হারুন মিয়া। ট্রলারটির অপর ১৬ জেলে নিরাপদে এসে পৌঁছেছেন বলে জানান তিনি। বর্তমানে বঙ্গোপসাগর উত্তাল হয়ে উঠেছে। উত্তাল সমুদ্র থেকে সকল মাছ ধরার ট্রলার নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য মৎস্যবন্দর আলীপুর, মহিপুরের শিববারিড়া নদসহ বিভিন্ন পোতাশ্রয়ে আসতে শুরু করেছেন বলে নিশ্চিত করেছে কুয়াকাটা-আলীপুর মৎস্য ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মো. আনছার উদ্দিন মোল্লা।

যোগাযোগ বিছিন্ন বরগুনার শত শত ট্রলার

বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী ও জেলা ফিশিং ট্রলার শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক দুলাল মিয়া বলেন, ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষে গভীর সমুদ্রে মাছ ধরতে যায় শতশত ট্রলার। আবহাওয়া খারাপ দেখে ইতোমধ্যে বেশ কিছু ট্রলার ঘাটে এলেও এখনো দেড় শতাধিক ট্রলার গভীর সমুদ্রে রয়েছে। এখন পর্যন্ত তাদের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন[email protected]এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]