ভাসমান হাসপাতাল এখন স্বরূপকাঠিতে

  • 26
    Shares

রাহাদ সুমন, বিশেষ প্রতিনিধি: “জীবনতরী” ভাসমান হাসপাতাল এখন পিরোজপুরের স্বরূপকাঠিতে। “জীবনতরী” স্বরূপকাঠির (নেছারাবাদ) সন্ধ্যা নদীর তীরে ছারছীনা দরবার শরীফের নদীর ঘাটে অবস্থান নিয়েছে। গরীব ও অসহায় রোগীদের চিকিৎসা সেবা দেয়া ভাসমান এ হাসপাতালের মূল লক্ষ্য। রোগীদের জানান দেয়ার জন্য চলছে প্রচারনা।ইতিমধ্যে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে রোগী আসতে শুরু করেছে।

জীবনতরী ভাসমান হাসপাতালটি ইম্প্যাক্ট ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ একটি বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা যা পরিহারযোগ্য প্রতিবন্ধিতা প্রতিরোধ ও প্রতিকারের লক্ষে ১৯৯৩ সাল থেকে কাজ করে আসছে। ভাসমান হাসপাতালটির অফিসার এসকে গোলাম ইসদানি জানান, বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রীর কার্য্যালয়ের এনজিও বিষয়ক ব্যুরো কর্তৃক নিবন্ধনকৃত এ ভাসমান হাসপাতালটিতে প্রতিবন্ধিতা প্রতিরোধ ও প্রতিকারের লক্ষে যেসব কার্যক্রম পরিচালনা করা হয় তা হল নদীবাহিত এলাকায় বসবাসকারী সুবিধা-বঞ্চিত দরিদ্র রোগীদের স্বল্প খরচে নাক, কান, গলার রোগের চিকিৎসা ও অপারেশন এবং চক্ষু রোগের চিকিৎসা, অপারেশন ও সহায়ক সামগ্রীর ব্যবস্থা, ঠোঁটকাটা, তালুকাটা, আগুনে পোড়া রোগীদের চিকিৎসা ও প্লাষ্টিক সার্জারীসহ অন্যান্য সেবা দেওয়া হয়।

রয়েছে এ্যাম্বুলেন্স ও প্রয়োজনে এয়ার এ্যাম্বুলেন্স । এছাড়া এখানে প্রতিবন্ধীতা বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে ধাত্রী প্রশিক্ষন, প্রাথমিক শিক্ষক প্রশিক্ষন এবং স্বাস্থ্যকর্মী প্রশিক্ষন কর্মশালা পরিচালনা করা হয়ে থাকে।প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত প্রতি রোগীর কাছ থেকে ৫০ টাকা ফি নিয়ে সিরিয়ালের মাধ্যমে এমবিবিএস চিকিৎসকের মাধ্যমে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়। এই সেবায় নিয়োজিত তিনজন চিকিৎসক সার্বক্ষনিক নিয়োজিত থাকেন। রোগের উপর নির্ভর করে তাদেরকে বিশেষজ্ঞদের মাধ্যমে অপারেশন করাসহ অন্যান্য চিকিৎসা দেওয়া হয়।

অপর দিকে সাতদিনের প্রশিক্ষনের মাধ্যমে প্রশিক্ষণার্থীদেরকে সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়। ভাসমান হাসপাতালটির কর্তৃপক্ষরা আরও জানান, তারা ১৬ জুলাই স্বরূপকাঠিতে এসেছেন। এর আগেও এখানে দু’বার এসে চিকিৎসা সেবা দিয়েছেন এই নিয়ে তৃতীয়বার। প্রাথমিকভাবে তিন মাস এবং যদি রোগীর সংখ্যা বেড়ে যায় তাহলে ছয়মাসও এখানে থাকতে পারেন বলে জানান।


  • 26
    Shares

বরিশালট্রিবিউন.কম’র (www.barisaltribune.com) প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।