ভৈরবে উদ্ধারকৃত গাঁজা বিক্রি, দুই পুলিশ প্রত্যাহার


মাদক ব্যবসায়ীকে আটকের পর উদ্ধারকৃত গাঁজা বিক্রি করার অভিযোগে কিশোরগঞ্জের ভৈরব থানার এক এসআইসহ দুই পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। গতকাল ২২ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার জেলা পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ এক নির্দেশে তাদেরকে পুলিশ লাইনে প্রত্যাহার করা হয় বলে জানা গেছে।

অভিযুক্তরা হলেন—ভৈরব থানার এসআই দেলোয়ার হোসেন, গাড়িচালক কনস্টেবল মো. মামুন।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আরো দিন পুলিশ সদস্যকে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে ডাকা হয়েছে। এরা হলেন—আমিনুল ইসলাম, জামাল উদ্দিন ও রাজীবুল ইসলাম।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ২১ অক্টোবর, বুধবার সকালে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভৈরব সড়কসেতুর ন্যাটাল টোলপ্লাজায় একটি গাড়ি তল্লাশি করে ৭ কেজি গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। পরে গাঁজা রেখে ওই মাদক ব্যবসায়ীকে ছেড়ে দেন দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা।

মাদক ব্যবসায়ী অন্য একটি বাসে করে সে স্থান ত্যাগ করার পর উদ্ধারকৃত গাঁজা গোপনে নরসিংদী জেলার রায়পুরা এলাকায় নিয়ে বিক্রি করেন এসআই দেলোয়ার ও গাড়িচালক মামুন। সে টাকা দু‘জনে ভাগাভাগি করে নিয়ে যান।

ঘটনা জানতে পেরে গতকাল দুপুরেই অভিযুক্ত দুই পুলিশ সদস্যকে কিশোরগঞ্জ পুলিশ লাইনে প্রত্যাহারের নির্দেশ দেন পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ। তারা বিকেলে ভৈরব থানা থেকে ছাড়পত্র নিয়ে পুলিশ লাইনে যোগ দিয়েছেন বলে জানা গেছে।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]