মহাবিপদ সংকেত পেয়ে আশ্রয় কেন্দ্রে যেতে শুরু করেছে উপকূলবাসী


খুলনার উপকূলীয় এলাকা ও মংলা সমুদ্রবন্দর সংলগ্ন উপজেলা কয়রা, দাকোপ, পাইকগাছা ও বটিয়াঘাটায় ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর ৭ নম্বর মহাবিপদ সংকেত জারির পর বিভিন্ন গ্রাম থেকে লোকজন আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নিতে শুরু করেছে।

এদিকে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ মোকাবেলায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৩৪৯টি আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জেলার ২৩৯ আশ্রয় কেন্দ্রের মধ্যে দাকোপ উপজেলায় ৮৯, বটিয়াঘাটায় ২৭, পাইকগাছায় ৩২, কয়রায় ১২১, ডুমুরিয়ায় ২৯, রূপসায় ২৯ ও তেরখাদায় ২২টি রয়েছে।

খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন জানান, “ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ মোকাবেলায় জেলায় ৩৪৯টি আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত রাখার পাশাপাশি রেড ক্রিসেন্ট সহ উদ্ধার কর্মীরা প্রস্তুত আছে। পর্যাপ্ত শুকনো খাবার, অর্থ, ওষুধ এবং পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট মজুদ রাখা হয়েছে।”

জেলার কয়রা, পাইকগাছা, দাকোপ ও বটিয়াঘাটায় আক্রান্ত প্রবণ এলাকা। এই সকল এলাকায় অতিরিক্ত সতর্কতা জারি ও প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও স্বেচ্ছাসেবীদের সহয়তায় উপকূলীয় এলাকাগুলো থেকে জনসাধারণের নিরাপদ আশ্রয়ে নিতে মাইকিং করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন[email protected]এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]