নুসরাত হত্যা

মাদ্রাসার শিক্ষক আবুল খায়েরের সাক্ষ্যগ্রহণ আজ


ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসার ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার মামলায় আজ বৃহস্পতিবার সাক্ষ্য দেবেন মাদ্রাসার শিক্ষক আবুল খায়ের। এর আগে বুধবার (১০ জুলাই) দশম দিনে আদালতে পূর্বনির্ধারিত নুসরাতের মা শিরীন আখতার ও মাদ্রাসার শিক্ষক আবুল খায়ের সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করেন।

বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদের আদালতে তাকে সাক্ষ্য ও জেরা করা হবে।

এদিকে নুসরাতের মা অসুস্থ হয়ে পড়লে বিচারক আর শিক্ষকের সাক্ষ্যগ্রহণ করেননি। আজ মাদ্রাসার শিক্ষক আবুল খায়েরের সাক্ষ্যগ্রহণ করবেন। এ পর্যন্ত ১২ জনের সাক্ষ্য ও জেরা শেষ হয়েছে।

মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী এম শাহজাহান সাজু বলেন, আদালতে সাক্ষ্যগ্রহণ চলাকালে রাফির মা বারবার কান্নায় ভেঙে পড়েন।

এজলাসে অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলা, কামরুন নাহার মনি ও উম্মে সুলতানা পপিকে দেখে চিৎকার করে কেঁদে ওঠেন তিনি। একপর্যায়ে এজলাসেই জ্ঞান হারান তিনি। দ্রুত তাকে ফেনী হাসপাতালে নেয়া হয়।

উল্লেখ্য, এ মামলায় ২৭ জুন মামলার বাদী ও প্রথম সাক্ষী রাফির বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমানের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়। এর পর তাকে জেরা শুরু করেন আসামিপক্ষের আইনজীবীরা, যা শেষ হয় রোববার (৩০ জুন)। সোম ও মঙ্গলবার রাফির বান্ধবী নিশাত সুলতানা ও সহপাঠী নাসরিন সুলতানা ফুর্তির সাক্ষ্যগ্রহণ ও জেরা শেষ হয়।

এদিকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলায় ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের বিরুদ্ধে চার্জ (অভিযোগ) গঠন শুনানির জন্য আগামী ১৭ জুলাই দিন ধার্য করেছেন আদালত।


বরিশালট্রিবিউন.কম’র (www.barisaltribune.com) প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।