মোদি বাংলাদেশে আসলে পুনরাবৃত্তি হবে বদর যুদ্ধের

  • 102
    Shares

ভারতের দিল্লিতে হিন্দুত্ববাদীদের সহিংসতা ও মুসলিম গণহত্যার প্রতিবাদে সিলেটে বিক্ষোভ-সমাবেশ করেছেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের নেতাকর্মীরা। একই ইস্যুতে সিলেটের আরও কয়েকটি সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন শুক্রবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে নগরে বিক্ষোভ মিছিল করে। এ সময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে নানা স্লোগানে মুখর হয়ে ওঠে সিলেট নগরের রাজপথ। এছাড়া সিলেটের প্রতিটি মসজিদে মসজিদে ভারতে নির্যাতিত মুসলমানদের জন্য জুমার নামাজ শেষে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।


জুমার নামাজের পর নগরের বন্দরবাজার দলীয় অফিসের সামনে থেকে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম সিলেট জেলা ও মহানগরের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে নগরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে সিটি পয়েন্টে গিয়ে সমাবেশে মিলিত হন। বিক্ষোভ কর্মসূচিতে দলীয় নেতাকর্মী ছাড়াও বিপুল সংখ্যক সাধারণ মুসল্লি অংশ নেন।এ সময় বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মী ও মুসল্লিরা নরেন্দ্র মোদিকে আবু জেহেলের উত্তরসূরি আখ্যা দিয়ে কুশপুত্তলিকা দাহ করে তার দুই গালে জুতা মারেন।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি একজন সন্ত্রাসী। তার নির্দেশেই নিরীহ মুসলমানদের উপর হত্যাযজ্ঞ চালানো হচ্ছে। তারা নির্বিচারে গুলি করে মুসলমানদের মারছে। মসজিদ-মাদরাসা জ্বালিয়ে-পুড়িয়ে দিচ্ছে, মিনারে হনুমানের পতাকা লাগিয়েছে। এসব কাজ বিশ্বের কোটি কোটি মুসলমানের কলিজায় আঘাত দিয়েছে।

বক্তারা আরও বলেন, মার্চে মুজিববর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠানে ইসলাম ও মুসলিমবিদ্বেষী নরেন্দ্র মোদিকে বাংলাদেশের জনগণ দেখতে চায় না। মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে মোদি যোগ দিলে এদেশে বদরের যুদ্ধের পুনরাবৃত্তি হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তারা।বক্তারা বলেন, শাপলা চত্বরে রক্ত দিয়েছি, এ রক্তের দাগ এখনও শোকায়নি। প্রয়োজনে মোদি দেশে আসলে আবারও রক্ত দিতে আমরা প্রস্তুত রয়েছি। তবুও মুসলমানদের ওপর কোনো ধরণের নির্যাতন সহ্য করবো না

ভারতের শত শত বছরের ইতিহাস, ঐতিহাসিক স্থাপনা ও ঐতিহ্যে মুসলমানদের নাম মিশে আছে উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, ভারতের ঐতিহাসিক বহু স্থাপত্য মুসলমানদের তৈরি।চাইলেই এসব মুছে দেয়া যায় না। ভারতীয় মুসলমানদের অবদানের কাছে আজও পুরো বিশ্ব ঋণী।বিজেপিসহ কট্টরপন্থী হিন্দু সংগঠনগুলো ভারতকে মুসলিমশূন্য করার জন্য মুসলিম সম্প্রদায়ের ওপর ধারাবাহিক যে নির্যাতন নিপীড়ন চালাচ্ছে তা মোদি ও হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলোর পতন ডেকে আনবে।


  • 102
    Shares

[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন[email protected]এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]