যশোরের জেলা প্রশাসক হলেন কক্সবাজারে সন্তান শফিউল আরিফ


কক্সবাজার প্রতিনিধি : কক্সবাজার পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরা এবিসি ঘোনার মরহুম আলহাজ্ব আবু তাহের কুতুবী ও মর্জিয়া বেগম দম্পতির দ্বিতীয় পুত্র মোহাম্মদ শফিউল আরিফ প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন বিষয়ে সম্মান সহ মাষ্টার্স করেছেন কৃতিত্বের সাথে ১৯তম ব্যাচে ১৯৯৫ সালে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লেখাপড়া শেষ হতেই মোহাম্মদ শফিউল আরিফ দেশের অভিজাত ও মর্যাদাপূর্ণ ক্যাডার হিসাবে পরিচিত ১৯৯৯ সালে ১৮ তম বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে বিসিএস (প্রশাসন) এ যোগ দেন।

চাকুরীর শুরুতেই চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসনে সহকারী কমিশনার হিসাবে দায়িত্বপালন করেন।

এরপর চৌদ্দগ্রাম ও লাকসামে সহকারি কমিশনার (ভূমি) হিসাবে সফলতার সাথে কাজ করেছেন।

পটিয়া, মহালছড়ি, কাপ্তাই এর ইউএনও, খাগড়াছড়ি সিনিয়র সহকারি সচিব এবং ফেনী জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, ফেনীর ডিডিএলজি, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের আইন কর্মকর্তা, স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের উপসচিব ও ২০১৭ সালের ৯ আগষ্ট হতে অদ্যাবধি লালামনিরহাট জেলার জেলা প্রশাসকের দায়িত্বপালন করে আসছেন সফলভাবে। মোহাম্মদ শফিউল আরিফ জনপ্রশাসন বিষয়ে লন্ডনের বিখ্যাত ব্রুনেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গ্লোবালাইজেশন এন্ড গভর্নেন্সের উপর স্নাতকোত্তর ডিগ্রীও অর্জন করেছেন কৃতিত্বের সাথে।

মোহাম্মদ শফিউল আরিফ দক্ষ প্রশাসক ও জনবান্ধব কর্মকর্তা হিসাবে সরকারি-বেসরকারি পুরস্কার পেয়েছেন অনেক। একজন সৎ ও দক্ষ কর্মকর্তা হিসাবে

কক্সবাজারের গৌরব মোহাম্মদ শফিউল আরিফের সুনাম রয়েছে প্রশাসনের সর্বত্র। মোহাম্মদ শফিউল আরিফ ২০০৫ সালের ১০ নভেম্বর কক্সবাজারের শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও অনেক সামাজিক, ধর্মীয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সফল প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব ওমর সুলতান ও হোসনে আরার জ্যেষ্ঠ কন্যা শাহীন আক্তারের সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন।

শফিউল আরিফ-শাহীন আক্তার দম্পতির একমাত্র পুত্র সন্তান সাদমান আরিফ সিয়াম লালামনিরহাট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র।


বরিশালট্রিবিউন.কম’র (www.barisaltribune.com) প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।