যৌন নিপীড়ন ইস্যু: পদত্যাগ করতে পারেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

  • 30
    Shares

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্নের লেবার পার্টিতে একটি যৌন নিপীড়নের অভিযোগে বেশ অস্বস্তি বিরাজ করছে। এতে তার ভাবমূর্তি তো ক্ষুণ্ণ হয়েছেই, এর জেরে তাকে পদত্যাগ করতে হতে পারে বলেও শোনা যাচ্ছে। খবর যুক্তরাজ্যের গণমাধ্যম ডেইলি মেইলের।লেবার পার্টির একজন কর্মীর বিরুদ্ধে এক ১৯ বছরের নারী স্বেচ্ছাসেবীকে যৌন নিপীড়ন এবং দলের অন্য সদস্যদেরকে যৌন হয়রানি করার অভিযোগ ওঠার পর তিনি পদত্যাগ করেছেন।

এই কিশোরী নিউজিল্যান্ডের গণমাধ্যম স্পিনফকে জানান, তিনি ২০১৮ সালে যৌন নিপীড়নের শিকার হন কিন্তু বিষয়টি চেপে যান। লেবার পার্টির এই অভিযোগ তদন্তের জেরে দলটির প্রেসিডেন্ট নাইজেল হাওয়ার্থও পদত্যাগ করেছেন।আরডার্ন জানান, তিনি এই যৌন নিপীড়নের ঘটনা গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার আগে জানতেন না। কিন্তু বিরোধী দলের নেতা সাইমন ব্রিজেস দাবি করেন, গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার আগেই আরডার্ন এই ঘটনা জেনেছিলেন।

তিনি দেশটির গণমাধ্যম নিউজহাবকে বলেন, আমি মনে করি আরডার্ন বিষয়টি জানতেন। হতে পারে দলের প্রেসিডেন্ট ভুল করেছিলেন কিন্তু প্রধানমন্ত্রী যখন চুপ থাকেন, তখন জবাবদিহিতার প্রশ্ন এসে যায়।ব্রিজেস বলেন, আরডার্নের জন্য বলির পাঠা হয়েছেন হাওয়ার্থ। এক্ষেত্রে যে পদক্ষেপগুলো নেয়া সম্ভব ছিল, সেগুলো নেন প্রধানমন্ত্রী।দেশটির রেডিও হোস্ট ডানকান গার্নার বলেন, আরডার্নকে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করতে হতে পারে। প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া একটি গাড়ির চালক যেভাবে কোনও কিছুর তোয়াক্কা না করে সামনের দিকে এগিয়ে যান, আরডার্ন সেভাবেই সবকিছু তছনছ করেছেন।


  • 30
    Shares

[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন[email protected]এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]