শিক্ষাবোর্ড কর্মচারীকে অস্ত্র ঠেকিয়ে মারধর করলো বিএনপি নেতা


বরিশাল শিক্ষাবোর্ডের উচ্চমান সহকারী সাইফুল ইসলাম এর ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। সোমবার রাত ৮টার দিকে নগরীর বটতলা এলাকার শশী মিস্টান্ন ভান্ডারের সামনে হামলার শিকার হন তিনি। হত্যার উদ্দেশ্যে পেটে রিভারবল ঠেকিয়ে সহযোগিদের নিয়ে তাকে মারধর করে চরবারিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি জিয়াউল ইসলাম সাবু। এসময় তিনি ডাকচিৎকার করলে সাবু ও তার সহযোগিরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বরিশাল সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেন। এ ঘটনায় কোতয়ালী মডেল থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করেছেন সাইফুল ইসলাম।

ওই ডায়েরীতে তিনি উল্লেখ করেন জিয়াউল ইসলাম সাবুর নিকটাত্মীয় চরবারিয়া ইউনিয়নের মৃত ইউসুব মল্লিকের মেয়ে হালিমা খাতুনের সাথে ২০১৭ সালে সাইফুল বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। হালিমার এর আগে বিবাহ হয়েছে এবং ওই স্বামী বর্তমান তা সাইফুল জানতেন না। বিষয়টি জানার পরে হালিমা ওই স্বামীকে তালাক দিয়েছেন এমনটি সাইফুলকে জানান। এরপর সাবুর সহযোগিতায় হালিমা সাইফুল এর কাছ থেকে ১৫ লক্ষ টাকা নেন সাইফুল এর কাছ থেকে। ওই টাকা চাইতে গেলে হালিমা সাবুকে দিয়ে তাকে ভয়ভিতী দেখায়। এরপর গত সোমবার রাতে তার সাথে টাকার বিষয়ে কথা আছে বলে সাবু তাকে বটতলা এলাকায় খবর দিয়ে নেয়। শসী মিস্টির সামনে যেতেই সাবু তাকে অস্ত্র ঠেকায় এবং কয়েকজন মুখুশধারী লোক তাকে মারধোর শুরু করে। পরে সে চিৎকার দিলে স্থানীয়রা ছুটে আসলে প্রানে বেচে যায়।

তবে জিয়াউল ইসলাম সাবুর সাথে এ বিষয়ে যোগাযোগ করার চেস্টা করা হলে তার সেলফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। কোতয়ালী মডেল থানার ওসি নুরুল ইসলাম জানান, সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে একটি সাধারন ডায়েরী করেছেন। আমরা বিষয়টি তদন্ত করছি। এরপর ব্যাবস্থা নেয়া হবে।


বরিশালট্রিবিউন.কম’র (www.barisaltribune.com) প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।