সরকারকে বিপদে ফেলতে কাটা মাথার গুজব: কাদের


সরকারকে বিপদে ফেলতে ‘পদ্মা সেতুতে কাটা মাথা লাগবে’ বলে গুজব ছড়ানো হচ্ছে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের কর্মীসভা শেষে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এ মন্তব্য করেন।


প্রকাশ্যে সরকারবিরোধী তৎপরতা দুর্বল হলেও গোপনে ষড়যন্ত্র হচ্ছে দাবি করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, সরকারকে বিপদে ফেলতে গুজবের ডালপালা বিস্তার করছে। পদ্মা সেতু নিজস্ব অর্থায়নে হচ্ছে- এটা তারা সহ্য করতে পারছে না, গায়ে জ্বালা ধরছে। তাই তারা বলে লক্ষ মানুষের মাথা ও রক্তের প্রয়োজন।

পদ্মা সেতু নির্মাণ কাজে ‘মানুষের মাথা লাগবে’ বলে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত গুজবে বিভ্রান্ত না হতে সম্প্রতি এক স্মারকপত্রের মাধ্যমে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সরকারের সেতু বিভাগ। তার দুই দিনের মাথায় সেতুমন্ত্রী বিষয়টি নিয়ে কথা বললেন।

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনারা কি বিভ্রান্ত হয়েছেন, যে মানুষের কল্লা লাগবে। এতো রক্ত দরকার। এসকল অপপ্রচার, কি নির্মম নিষ্ঠুর এদের রাজনীতি! আন্দোলনে ব্যর্থ, নির্বাচনে ব্যর্থ; এখন শুরু করেছে অপপ্রচার। অপপ্রচার ছাড়া এদের কোনো পুঁজি নেই। এই অপপ্রচারের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

দেশের কোথাও গণতন্ত্র নেই বলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের মন্তব্যের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পদক বলেন, দেশে গণতন্ত্রের কোনো সংকট নেই। গণতন্ত্রের যদি সংকট থাকে সেটা আছে বিএনপিতে।

তিনি বলেন, বিএনপি মহাসচিব নির্বাচনে জিতেও সংসদে যোগ দেননি। কিন্তু সেই আসনে উপনির্বাচন দিয়ে বিএনপির যিনি নির্বাচিত হয়েছেন তিনি সংসদে এসেছেন। এই যে স্ববিরোধিতা, এটা কী কোনো গণতন্ত্র?

এদিকে সকালে বনানীর সেতু ভবনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানান, পদ্মাসেতু নির্মাণে মানুষের মাথা লাগবে বলে যারা গুজব ছড়িয়েছে, তাদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে।

ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণের নকশা রিভিউ ও নির্মাণকাজ তদারকির জন্য পরামর্শক নিয়োগের চুক্তি সই উপলক্ষ্যে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সেখানে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী গুজবকারীদের খুঁজে বের করার নির্দেশ দিয়েছেন। তাদের খুব দ্রুত খুঁজে বের করা হবে। গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে এ বিষয়ে কথাও হয়েছে।

তিনি বলেন, পদ্মাসেতু নিয়ে সারাদেশে একটা আতঙ্ক ছড়ানোর পাঁয়তারা চলছে। কীভাবে এমন একটা অবাস্তব ও অবৈজ্ঞানিক বিষয়কে সামনে আনা হলো, আমাদের বোধগম্য নয়। যারা এসব করেছে, তারা অবশ্যই বিচারের আওতায় আসবে।

সেতুমন্ত্রী বলেন, মূল পদ্মাসেতুর অগ্রগতি ৮১ শতাংশ। আর গোটা সেতু প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি ৭১ শতাংশ। পদ্মাসেতুর পাইলিং আর একটা বাকি আছে।

ঢাকা-আশুলিয়া এক্সপ্রেসওয়ে প্রসঙ্গে কাদের বলেন, প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি শেষ করে চলতি বছরের ডিসেম্বর মাসে প্রকল্পের মূল কাজ শুরু হবে। প্রায় ৩ শ’ চার কোটি টাকার চুক্তি অনুযায়ী পরামর্শক প্রতিষ্ঠান হিসেবে যৌথভাবে স্পেনের টেকনিকা ওয়াই প্রোয়েকটস ও বাংলাদেশের ডিওএইচডব্লিউএ-ডিডিসি কোম্পানি কাজ করবে।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন[email protected]এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]