সেতুর নিচে দেয়াল তুলে প্রভাবশালীর মাছ চাষ


অনলইন ডেস্ক : রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার গগনবাড়িয়া গ্রামে সেতুর নিচে ইটের দেয়াল তুলে পয়ঃনিষ্কাশন বন্ধ করে মাছ চাষের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই গ্রামের জাকির হোসেন নামের এক ব্যাক্তি এভাবে গত দু’বছর ধরে বিলের পানি আটকিয়ে মাছ চাষ করছেন বলে জানা গেছে।

এ কারনে ওই এলাকার কৃষকদের জমির সবজি ফসল ডুবে গেছে। ডুবতে বসেছে পানের বরজ। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে এ ব্যাপারে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার না পেয়ে ভুক্তভোগী কৃষকরা এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার গগনবাড়িয়া দক্ষিণ পাড়া ফলিয়ার বিলের মাঝে একটি সেতু রয়েছে।

বন্যার সময় বিলের পানি ওই সেতু নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়। এতে করে ওই এলাকার কৃষকদের জমির ফসল বন্যার পানিতে কখনো ডুবতো না। কিন্তু ওজ এলাকার জাকির হোসেন নামের এক প্রভাবশালী ব্যাক্তি দু’বছর ধরে ওই সেতুর নিচে ইটের দেয়াল তুলে পানি আটকিয়ে সেখানে মাছ চাষ করছে। ফলে এবার উপুর্যপুরী বৃষ্টির কারণে বন্যা দেখা দেওয়ায় ডুবতে বসেছে ওই এলাকার কৃষকদের সবজি ফসল সহ পানের বরজ।

ইতিমধ্যে অনেকের ফসল ডুবে গেছে। এরমধ্যে কৃষক এমরান আলীর ৮ কাঠা জমির মরিচ ক্ষেত, মকিম আলীর ৫ কাঠা জমির মরিচ ক্ষেত ও ২ কাঠা জমির পটল, মজিবরের সাড়ে ৩ কাঠা জমির মরিচ, আমিনুরের ১৬ কাঠা জমির মরিচ, আবু শামার ৪ কাঠা জমির মরিচ, ও রুস্তম আলীর ৪ কাঠা জমির করলা ক্ষেত ডুবে গেছে। এছাড়া আরও মরিচ ক্ষেত ও পানবরজ হুমকির মুখে রয়েছে। শীগ্রই ওই সেতুর নিচ দিয়ে পানি প্রবাহের ব্যবস্থা না নেয়া হলে পানবরজ গগনবাড়িয়া গ্রামের কয়েকটি বাড়িও ডুবে যেতে পারে বলে আশংকা করছেন ভুক্তভোগী লোকজন।

এ ব্যাপারে প্রতিকার চেয়ে ওই গ্রামের কৃষকদের পক্ষে এমরান আলী নামের এক ব্যাক্তি গত ২৫ জুন জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানতে চাইলে জাকির হোসেন দাবি করেন, যে জমিতে মাছ চাষ করা হচ্ছে সেটি খাস জমি। সরকারের কাছ থেকে লীজ নিয়ে তিনি মাছ চাষ করছেন। সেতুর নিচে ইটের দেয়াল তুলার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন যখন লোকজনের সমস্যা হবে তখন দেয়াল ভেঙে দেয়া হবে।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]