সৈয়দ শামসুল হকের চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকী আজ


সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর এই দিনে ৮২ বছর বয়সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন দেশবরেণ্য এই লেখক। এর আগে তিনি লন্ডনে চার মাস ফুসফুসের ক্যান্সার রোগের সঙ্গে লড়াই করেছেন। সৈয়দ শামসুল হকের জন্ম ১৯৩৫ সালের ২৭ ডিসেম্বর কুড়িগ্রামে।

বাংলা সাহিত্যের প্রতিটি ক্ষেত্রে তিনি বিচরণ করেছেন অনাবিল ছন্দে। কবিতা, উপন্যাস, নাটক, ছোটগল্প, কাব্যনাট্য, চিত্রনাট্য, গান, প্রবন্ধ, অনুবাদসহ সাহিত্যের প্রায় সব ক্ষেত্রে সাবলীল লেখনী ক্ষমতার জন্য তাকে ‘সব্যসাচী লেখক’ নামে অভিহিত করা হয়। তার লেখক জীবন প্রায় ৬২ বছরব্যাপী বিস্তৃত।

কবিতা রচনার মধ্য দিয়ে তার সাহিত্য জীবনের শুরু। ১৯৫১ সালে সাহিত্য জগতে পা রাখার দিন থেকে মৃত্যুপূর্ব পর্যন্ত থামেনি সৈয়দ শামসুল হকের কলম। ১৮ বছর বয়সে প্রকাশিত হয় তার প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘একদা এক রাজ্যে। এর পর একটানা ছয় দশক ধারাবাহিকভাবে তার তিন শতাধিক গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে।

অগণিত পাঠকের ভালোবাসার পাশাপাশি দেশের প্রায় সব পুরস্কারই পেয়েছেন তিনি। পেয়েছেন রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ সম্মাননা স্বাধীনতা পদক ও একুশে পদক। এ ছাড়াও বাংলা একাডেমি পদক, আদমজী সাহিত্য পুরস্কার, পদাবলী কবিতা পুরস্কার, জাতীয় কবিতা পুরস্কার, ইত্যাদী পদকেও ভূষিত হয়েছেন তিনি।

প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে সৈয়দ হকের জন্মস্থান কুড়িগ্রামে আজ তার সমাধিতে বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের শ্রদ্ধাজ্ঞাপনসহ আলোচনা সভা, র‌্যালি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]