হাওয়া বিশারদের আন্দাজ : দক্ষিণাঞ্চলের মানচিত্র বদলে ফেলতে পারে আম্পান

  • 264
    Shares

বরিশাল : সময় বদলেছে আছড়ে পরার। ধারণা করা হচ্ছে আজ বুধবার (২০ মে) দুপুরের পর থেকে বিকাল বা সন্ধ্যা নাগাদ যেকোনও সময় দেশের উপকূল অতিক্রম করবে আম্পান। তবে ‍এবারও বুক পেতে দিতে পারে সুন্দরবন।

এর প্রভাবে বুধবার মোংলা ও পায়রা বন্দরে দেওয়া হবে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত।

জানা গেছে, আম্পানের বেশি প্রভাব পড়বে ‍উপকূল ও দক্ষিণাঞ্চলে। লন্ডভন্ড করে দিয়ে যাবে ঝড়টি। বদলে ফেলতে পারে লোকালয়ের মানচিত্রও।

নদী তীরবর্তী জেলা সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর, নোয়াখালী, ফেনী, চট্টগ্রাম, মোংলা ও পায়রায় ব্যাপক তান্ডব চালাতে পারে বলে আন্দাজ করা হচ্ছে।

আবহাওয়া অধিদফতরের মহাপরিচালক শামসুদ্দিন আহমেদ বলেন, আম্পানের আগের পূর্বাভাস পরিবর্তন হয়েছে। এখন আমরা বলছি বুধবার দুপুরের পর বিকাল বা সন্ধ্যা নাগাদ আম্পান বাংলাদেশের উপকূল অতিক্রম করবে।

আম্পান যত এগিয়ে আসবে ঝড়ো হাওয়া, বৃষ্টির পরিমাণ তত বাড়বে। ‍এতে বরিশাল, পটুয়াখালী, মোংলা ও পায়রা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

কারণ, ওই জেলাগুলোর ওপর দিয়ে আম্পান বাংলাদেশ অতিক্রম করবে। তুলনামূলকভাবে কক্সবাজার ও চট্টগ্রামে ঝুঁকি কম।

ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৮৫ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ২০০ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ২২০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের কাছাকাছি সাগর খুবই বিক্ষুব্ধ। মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরগুলোকে আগের মতোই ৭ নম্বর বিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড়জনিত জলোচ্ছ্বাসের সতর্কতায় বলা হয়, ঘূর্ণিঝড় ও অমাবস্যার প্রভাবে উপকূলীয় জেলা সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর, নোয়াখালী, ফেনী, চট্টগ্রাম এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলোর নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৪ থেকে ৫ ফুট অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে।


  • 264
    Shares

[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন[email protected]এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]