২০শে মে, ২০১৯ ইং, সোমবার

বরগুনায় এমপি শম্ভুকে চান না আ.লীগ নেতারা

আপডেট: ডিসেম্বর ৩, ২০১৮

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনে বরগুনা-১ (সদর-আমতলী-তালতলী) আসনে ৫ বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর মনোনয়ন বাতিলের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা।

একই সঙ্গে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবিরকে মনোনয়ন দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগসহ সহযোগী ও অঙ্গ সংগঠনের নেতারা।

সোমবার (০৩ ডিসেম্বর) আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সংসদ ভবনের বাসভবনে গিয়ে তার সঙ্গে দেখা করে এই আহ্বান জানান তারা।

এ সময় জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামরুল আহসান মহারাজ, সাবেক কেন্দ্রীয় সহ-সম্পাদক এস এম মশিউর রহমান শিহাব, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য গোলাম সরোয়ার ফোরকান, আমতলী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান জিএম দেলোয়ার হোসেন, তালতলী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রেজাউল কবির জমাদ্দার, সাধারণ সম্পাদক তৌফিকুজ্জামান তনু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি কে এম আব্দুর রশিদ, জেলা কৃষক লীগের সভাপতি আজিজুল হক স্বপন, বরগুনা জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুর রহমান নান্টুসহ ৭০জনের মতো নেতা উপস্থিত ছিলেন।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বর্তমান সংসদ সদস্য শম্ভুকে মনোনয়ন না দিতে একাট্টা জেলা আওয়ামী লীগসহ স্থানীয় নেতাদের একাংশ। তারা পাঁচ দফায় দলের মনোনয়ন পাওয়া ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর পরিবর্তে ওই আসনে এবার নতুন প্রার্থী হিসেবে জাহাঙ্গীর কবিরকে চান।

তবে স্থানীয় নেতাদের দাবি এবং কোন্দলের বিষয়টি মাথায় রেখে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগও ওই আসনে দুইজনকে মনোনয়নের চিঠি দিয়েছে। তারা হলেন- বর্তমান সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির।

এখন মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষদিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে ওই আসনে কে হচ্ছে নৌকার প্রার্থী। তাই শেষ মুহূর্তে বর্তমান এমপিকে বাদ দিয়ে নতুন প্রার্থীকে মনোনয়ন দেওয়ার দাবিতে তদবিরে ব্যস্ত রয়েছেন শম্ভু বিরোধীরা।

এবিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জেলা যুবলীগের সভাপতি কামরুল আহসান মহারাজ বলেন, বরগুনা-১ আসনে দুইজনকে দলের পক্ষে থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। শম্ভু বাবুর সঙ্গে মূলত বিভিন্ন দল থেকে পল্টি খাওয়া লোকজন রয়েছেন। স্থানীয় সরকার নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াতের কিছু লোক টাকার বিনিময়ে দলে যোগ দিয়েছে। তারা কেউ কেউ চেয়ারম্যানও হয়েছেন।

‘জেলা আওয়ামী লীগের ভাইটাল রোল প্লে করে এবং সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনে কোনো নেতৃত্ব ওনার (শম্ভু) সঙ্গে নাই। দল একদিকে আর বর্তমান এমপি আরেক দিকে। আমরা জাহাঙ্গীর কবিরের সঙ্গে আছি। তাই তৃণমূল থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার এমপির পরিবর্তে নতুন মুখ চান স্থানীয় জনগণসহ নেতাকর্মীরা। আমরা তাদের প্রতিনিধি হিসাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে দেখা করে আমাদের কথা জানিয়েছি।’

এ সময় স্থানীয় নেতাদের ওবায়দুল কাদের বলেন, ওই আসনে দুজনকে মনোনয়ন দেওয়ার পরে আমাদের কাছে যে সমস্ত খবর পৌঁছেছে এবং সেগুলোর বেশিরভাগই তো পজেটিভ জাহাঙ্গীর কবিরের পক্ষে। এ বিষয়গুলো নেত্রীকে অবহিত করা হয়েছে এবং নেত্রীও এসব জানেন। আপনারা আশ্বস্ত হন নেত্রী নিশ্চয়ই দল রক্ষার জন্য ভালো সিদ্ধান্ত দেবেন। নেত্রী জাহাঙ্গীর কবিরের পক্ষেও সিদ্ধান্ত দিতে পারেন।

এদিকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হ্যাটট্রিক জয়ের মিশনে বিদ্রোহী প্রার্থীদের দমন করতে হার্ডলাইনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আওয়ামী লীগ। গত রোববার (২ ডিসেম্বর) থেকে একই আসনে দুইজনকে মনোনয়নের চিঠি দেওয়া প্রার্থীদের মধ্যে একজনকে রেখে আরেকজনের কাছে ইতোমধ্যে হাইকমান্ড থেকে মনোনয়ন প্রত্যাহারের নির্দেশনা যাওয়া শুরু হয়েছে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
মে ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« এপ্রিল    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
Website Design and Developed By Engineer BD Network