২০শে মে, ২০১৯ ইং, সোমবার

বরিশাল জেলায় ৬৪ প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল, আ.লীগের বিদ্রোহিতা করেছেন ৬ নেতা

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

বরিশাল : মনোনয়নরপত্র জমাদানের শেষদিন মঙ্গলবার বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত জেলার নয়টি উপজেলার রিটার্নিং অফিসারদের কার্যালয়ে ৬৪ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এরমধ্যে ২২ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী, ২৭ জন পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান ও সংরক্ষিত নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১৫ জন প্রার্থী রয়েছেন। এরমধ্যে ক্ষমতাশীন আওয়ামী লীগের নির্দেশনার বিদ্রোহীতা করেছেন ৬ নেতা। যারমধ্যে বরিশাল সদর উপজেলায় কোতয়ালী আওয়ামী লীগের আহবায়ক আনোয়ার হোসেন, বাবুগঞ্জে যুবলীগ নেতা মোস্তাক আহম্মেদ রিপন, মুলাদীতে আওয়ামী লীগ নেতা ইঞ্জিনিয়ার মোঃ ইউসুব আলী, উজরিপুরে আওয়ামী লীগ নেতা হাফিজুর রহমান ইকবাল, বাকেরগঞ্জে কেন্দ্রীয় শ্রমিক লীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক একেএম তিতুমির হাওলাদার। এরা প্রত্যেকেই রির্টানিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

উল্লেখিতদের মধ্যে পাঁচজন প্রার্থী দলের বিদ্রোহীতার বিষয়ে কথা না বললেও বরিশাল কোতয়ালী থানা আওয়ামী লীগের আহবায়ক ও সরকারি ব্রজমোহন কলেজের নির্বাচিত সাবেক ভিপি আনোয়ার হোসেন জানান-সারাদেশে উন্নয়নের জোয়ার বইলেও বরিশাল সদরে উন্নয়নের ছোয়া লাগেনি। নির্বাচিতরা ব্যবসাসহ হালুয়া-রুটি নিয়ে ব্যস্ত থাকায় সদর উন্নয়ন বঞ্চিত হয়েছে। তাই সদর উপজেলায় পরিকল্পিত উন্নয়নের জন্য তিনি প্রার্থী হয়েছেন। এটা সাম্যক দলের বিদ্রোহীতা দেখালেও মূলত প্রধানমন্ত্রীর ভিশন বাস্তবায়নের জন্য নির্বাচনে এসেছেন আনোয়ার হোসেন।

এদিকে পঞ্চম জাতীয় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বরিশালের কোথাও কোন বিএনপির প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন না। ফলে নিরুত্তাপ নির্বাচনী মাঠে জেলার ৯টি উপজেলায় এককভাবে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা জয়ী হচ্ছেন বলে ধারণা করছেন ভোটাররা। বরিশাল মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জিয়া উদ্দিন সিকদার জানিয়েছেন-দলের হাই কমান্ডের নির্দেশনা ছিল এই সরকারের অধিনে আর কোন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে না। তারই ধারাবাহিকতায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কোন প্রার্থীতা দিচ্ছে না দলটি। তবে নির্বাচনী প্রস্তুতিতে কোন অংশে পিছিয়ে নেই ক্ষমতাশীন দল আওয়ামী লীগ।

বরিশাল রির্টানিং অফিসারের কার্যালয়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত সদর উপজেলার চেয়ারম্যান প্রার্থী বর্তমান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এছাড়া একজন পুরুষ ও একজন নারী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। গৌরনদীতে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান সৈয়দা মনিরুন নাহার মেরী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। ওই উপজেলার পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক নুরুজ্জামান ফরহাদ মুন্সী ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী জিনিয়া আফরোজ হেলেন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। আগৈলঝাড়া উপজেলায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আব্দুর রইচ সেরনিয়াবাত ও পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে রফিকুল ইসলাম তালুকদার এবং নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে মলিনা রানী রায় মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। বাবুগঞ্জ উপজেলায় আওয়ামী লীগ মনোনীত কাজী ইমদাদুল হক দুলাল, ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা ফিরোজ আলম ও বিকল্পধারার এনামুল হক রাজু মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। ওই উপজেলায় সাতজন পুরুষ ও একজন নারী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। হিজলা উপজেলায় আওয়ামী লীগ মনোনীত সুলতান মাহমুদ টিপু, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বেলায়েত হোসেন ঢালী, স্বপন চৌধুরী ও এ্যাডভোকেট কাজী জাকির তাদের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এছাড়া তিনজন পুরুষ ও দুইজন নারী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। মুলাদী উপজেলায় আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী তারিকুল হাসান খান মিঠুসহ তিনজন পুরুষ ও দুইজন নারী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। উজিরপুর উপজেলায় আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল মজিদ সিকদার বাচ্চু, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান জাসদ নেতা আবুল কালাম আজাদ বাদল এবং উপজেলা যুবদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও বরাকোঠা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ফিরোজ হাওলাদার মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এছাড়া তিনজন পুরুষ ও তিনজন নারী ভাইসচেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। বানারীপাড়া উপজেলায় আওয়ামী লীগ মনোনীত গোলাম ফারুক ও জাতীয় পার্টির মিজান চোকদার মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এছাড়া পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ছয়জন ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে দুইজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। বাকেরগঞ্জ উপজেলায় আওয়ামী লীগ মনোনীত মোহাম্মদ শামসুল আলম চুন্নু মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এছাড়া দুইজন পুরুষ ও দুইজন নারী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

বরিশালের রিটার্নিং কর্মকর্তা ইকবাল আখতার জানান, বিকেল ৫ টা পর্যন্ত মনোনয়ন জমা নেওয়া হয়। এরপর ২৮ ফেব্রুয়ারী বাছাই এবং ৭ মার্চ প্রত্যাহারের শেষ দিন। আগামী ২৪ মার্চ তৃতীয় ধাপে বরিশালের ৯ উপজেলায় অনুষ্ঠিত হবে ভোট গ্রহন। বরিশালের ১০ উপজেলার মধ্যে ৯ উপজেলার ৭০৬ কেন্দ্রে মোট ভোটার ২১ লাখ ৮৮ হাজার ৮৬জন। শুধুমাত্র মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলায় মেযাদ শেষ না হওয়ায় তফসিল ঘোষণা করেনি নির্বাচন কমিশন।

 

বিটি/এসএমএইচ

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
মে ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« এপ্রিল    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
Website Design and Developed By Engineer BD Network