১৮ই এপ্রিল, ২০১৯ ইং, বৃহস্পতিবার

বানারীপাড়ায় অসহায়কে বেতন আর রেশন দিয়ে দিলেন পুলিশ সদস্য জাহিদ

আপডেট: মার্চ ২৮, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

রাহাদ সুমন, বানারীপাড়া : মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য-প্রখ্যাত সঙ্গীত শিল্পী প্রয়াত ভূপেন হাজারিকার চিরায়ত মানবিক গানের বাস্তবরূপ খুঁজে পাওয়া যায় বানারীপাড়া থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএস আই) জাহিদ হোসেনের মানবিকতায়। বানারীপাড়ার উত্তর বাইশারী গ্রামের দুই ছেলে শতবর্ষী বাবার খোঁজ-খবর না নেওয়ায় কঙ্কালসারে পরিণত হওয়া অসহায় বৃদ্ধ’র ভরণপোষণের দায়িত্ব নিয়ে মানবিকতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন তিনি।

বানারীপাড়া উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের উত্তর বাইশারী গ্রামের আ. কাদের হাওলাদার বয়সের ভারে ন্যুব্জ হয়ে ঠিকমতো চলাফেরা করতে পারছেন না। এই বয়সেও তার ঠাঁই হয়নি নিজ ঘরে। দুই ছেলে ও তিন মেয়ে তার। বড় ছেলে সুলতান হাওলাদার ও ছোট ছেলে জামাল হাওলাদার। ছেলেরা পিতার কোন প্রকার খোঁজ রাখেন না। বিষয়টি জানতে পেরে বানারীপাড়া থানার এএসআই জাহিদ হোসেন পিতার মতো পরম শ্রদ্ধাভরে অতিশপর বৃদ্ধ’র দায়িত্ব নিয়েছেন।

জানা গেছে কয়েক বছর পূর্বে বৃদ্ধ আ. কাদের অর্থাভাবে তার নিজ নামে রেকর্ডিয় কিছু পরিমান সম্পত্তি বিক্রি করতে চাইলে তার তিন মেয়ে মিলে সেই সম্পত্তি ক্রয় করেন। পরে তার নামের অন্য সম্পত্তি দুই ছেলে ও তিন মেয়ের মধ্যে ভাগভাটোয়ারা করে দিতে চাইলে বাধ সাধেন ছেলেরা। এরপর থেকেই ছেলেদের কাছে পিতা হয়ে যান বড় বোঝা। মাথা গোঁজার ঠাঁই হারিয়ে ফেলেন ছেলেদের কাছ থেকে। অর্ধাহারে অনাহারে চলতে থাকে তার জীবন ।

সম্প্রতি দুই ভাই তাদের বোনদের বিরুদ্ধে বানারীপাড়া থানায় সম্পত্তি নিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন। বোনেরাও ভাইদের বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ দায়ের করেন।

পাল্টাপাল্টি অভিযোগের তদন্তের দায়িত্ব পান বানারীপাড়া থানার এএসআই মো. জাহিদ হোসেন। তিনি সরেজমিনে তদন্তে গিয়ে বোনদের তেমন কোন ত্রুটি পাওয়া যায়নি।

যা দেখলাম তা রীতিমতো শিউরে ওঠার মতো। শতবর্ষী বৃদ্ব আ. কাদের চলাফেরা ও খাওয়া দাওয়া একে বারেই করতে পারছেন না । তার উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন হলেও দেখার কেউ নেই। হতদরিদ্র মেয়েদের সঙ্গতি নেই যে, পিতাকে হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে উন্নত চিকিৎসা করাবেন। চিকিৎসার অভাবে আ. কাদের হাওলাদারের শরীর অনেকটা কংকালসারে পরিণত হয়েছে।

এএসআই জাহিদ জানান স্বচোখে বৃদ্ধর করুন দৃশ্য দেখে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন তিনি। সিদ্ধান্ত নেন চিকিৎসার জন্য প্রতিমাসে ১ হাজার টাকা ও খাওয়া দাওয়ার জন্য তার প্রতি মাসের সম্পূর্ণ রেশন তাকে দিয়ে দিবেন।

২৭ মার্চ আ. কাদেরকে একহাজার টাকা ও তার এক মাসের রেশন দিয়ে এসেছেন।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
এপ্রিল ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« মার্চ    
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
Website Design and Developed By Engineer BD Network