একাদশ শ্রেণীর ছাত্রী হলেন বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার, চাইলেন ধর্ষকদের প্রকাশ্য শাস্তি

  • 1
    Share

বরিশাল: ধর্ষকদের প্রকাশ্যে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করার প্রস্তাব দিলেন বরিশালের বিভাগীয় কমিশনার রাইমু জামান। মঙ্গলবার (০৬ অক্টোবর) বিকেলে বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে বিভাগীয় কমিশনার ড. অমিতাভ সরকারের কাছ থেকে এক ঘন্টার জন্য প্রতীকি বিভাগীয় কমিশনারের দায়িত্ব গ্রহণ শেষে আলোচনা সভায় এ কথা বলেন রাইমু।

রাইমু জামান আরও বলেন, গত একমাসে ৩৩টির বেশী ধর্ষণ, নারী এবং কিশোরী নির্যাতনের প্রেক্ষাপটে আমি একজন কন্যা হিসেবে এদেশের লাখো কিশোরীর মত স্বপ্ন দেখি একটি সুস্থ, নিরাপদ পরিবেশ এবং সমাজ। যেখানে হাজারো স্বপ্ন বুকে নিয়ে কোন কিশোরীকে ধর্ষণের শিকার হতে হবে না। যেখানে শান্তা কিংবা তৃপ্তির মত কোন কিশোরীকে ধর্ষণের শিকার হয়ে আর বেছে নিতে হবে না আত্মহত্যার পথ।

তিনি বলেন, বরিশাল বিভাগের প্রতীকি বিভাগীয় কমিশনার হিসেবে আমি সুপারিশ করছি, বরিশাল বিভাগের সকল কন্যা শিশুদের ইজ্জত এবং জান-মাল রক্ষায় সকল জেলায় জেলা প্রশাসকদের নেতৃত্বে জেলা ভিত্তিক, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভিত্তিক কন্যা শিশু নিরাপত্তা বাস্তবায়ন কমিটি গঠন করা হােক। ইতিমধ্যে ধর্ষিত কিশোরীদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনা এবং ধর্ষকদের প্রকাশ্যে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা হােক। একটি ধর্ষণমুক্ত, ইভটিজিংমুক্ত বরিশাল গড়ে তোলা হােক। যেটি সমগ্র দেশের জন্য রোল মডেল হবে।

প্রতীকি এই কর্মকর্তা মনে করেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে দাড়িয়ে যে সমস্যাগুলোর সম্মুখীন হতে হয় অনলাইন ভিত্তিক সাইবার বুলিং। এরমাধ্যমে নারীরা চরম নিরাপত্তাহীনতার শিকার হচ্ছে। এখনো বাংলাদেশের অধিকাংশ কিশোরীরা জানে না ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সর্ম্পকে। তারা জানে না (১০৯২) হটলাইন সর্ম্পকে। তারা যোগাযোগ করতে পারছে না বিটিআরসিতে। আমি চাই বরিশাল বিভাগের জেলা প্রশাসকদের নের্তৃত্বে কিশোরী নিরাপত্তায় সাইবার টিম গঠন করে তোলা হোক।

একজন কন্যা শিশু সামাজিকভাবে শারীরীক গঠন, আকার, বেড়ে ওঠা, পারিবারিক অবস্থান বিবেচনায় বুলিংয়ের শিকার হচ্ছেন। যে কারনে তার পরিবার অনেকটা বাধ্য হয়ে বাল্যবিয়ের ব্যবস্থা করছেন। আমি চাই সকল ধরনের বুলিংয়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করে একটি নারী বান্ধব বরিশাল গড়ে তোলা হবে।

নারী বান্ধব সমাজ গড়ে তুলতে হলে নারী পুরুষের সম-অধিকার নিশ্চিত করতে হবে পরিবার থেকে। সর্বোপরি নারী বা পুরুষ নয় একজন মানুষ হিসেবে আমরা যেন সমাজে বাঁচতে পারি সেই ব্যবস্থা করতে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। আজকের এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আহ্বান থাকবে সমাজের কন্যা শিশুদের অবাধ মুক্তি, নারী নির্যাতনমুক্ত এবং নারী বান্ধব একটি পরিবেশ গড়ে্ উঠুক। সকলে একত্রিত হয়ে নারীর ক্ষমতায়ন এবং নারীর অধিকার নিশ্চিত করে একটি উন্নত বাংলাদেশ গড়ে তুলবো এই প্রত্যাশা করি।

কন্যাশিশু দিবস উপলক্ষে নারীর ক্ষমতায়নের জন্য বেসরকারি সংস্থা প্লান ইন্টারন্যাশনাল উদ্যোগে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে বিভাগীয় কমিশনারসহ জেলা প্রশাসকগণ এবং স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ সংযুক্ত ছিলেন। দ্বায়িত্ব গ্রহণের পর তাকে বিভাগীয় কমিশনার ড. অমিতাভ সরকারের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।

বিভাগীয় কমিশনার ড. অমিতাভ সরকার বলেন, এতি অত্যান্ত আশাব্যঞ্জক। নারীরা এখনো সমাজে-রাষ্ট্রে নানাভাবে নির্যাতন এবং বঞ্চনার শিকার হচ্ছেন। সেই প্রেক্ষাপটে রাইমু জামানের বিভাগীয় কমিশনার পদে দায়িত্ব গ্রহণ অন্যান্য কিশোরীদের ক্ষমতায়ন উৎসাহিত করবে। তিনি মনে করেন, নারী পুরুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সমঅধিকার চর্চাটা পরিবার থেকে শুরু করতে হবে।

প্রসঙ্গত, রাইমু জামান উপকূলীয় জেলা বরগুনার সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী।


  • 1
    Share

[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]