কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ পড়ছেন সাকিব!


টেস্টে বাংলাদেশের বেহাল দশা বহুদিনের। সেটা যেন একটু বেশিই স্পষ্ট হয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঘরের মাঠে বাংলাদেশের হোয়াইট ওয়াশ হওয়ার পর। এর মধ্যেই আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফরে টেস্ট থেকে ছুটি চেয়েছেন দেশসেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান।

ওই সময় ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) খেলার ইচ্ছের কথা জানান তিনি। বিসিবিও তার ছুটি মঞ্জুর করেছে ইতোমধ্যেই। নিশ্চিত হয়েছে শ্রীলঙ্কা সফরে সাকিবের না খেলা।

এরপর থেকেই দেশজুড়ে শুরু হয়েছে আলোচনা ও সমালোচনা। সাকিবের এমন সিদ্ধান্তে বিরক্ত বিসিবিও। তাই তাকে আর জাতীয় দলের লাল বলের চুক্তিতে রাখা হবে না বলে জানিয়েছে বোর্ডের বিশ্বস্ত একটি সূত্র।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) নিউজিল্যান্ড সফরের দলে থাকা কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। এরপর বৈঠকে বসবেন বোর্ডের শীর্ষ কর্তারা। তারপরই আসবে সাকিবকে কেন্দ্রীয় চুক্তিতে না রাখার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত।

মূল আলোচনাটা হবে আসলে সাকিবকে পুরোপুরি কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ দেওয়া হবে নাকি কেবল লাল বল। এই নিয়ে বিসিবির ভেতরেই দুটি পক্ষ তৈরি হয়েছে। বোর্ডের একাংশ চাচ্ছে সাকিবকে সব ধরণের কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ দিতে, আরেকপক্ষের চাওয়া কেবল লাল বল। আর সেটা হলে বিসিবিতে বেতন কমে যাবে সাকিবের!

এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। সোমবারই বিষয়টি নিয়ে সিদ্ধান্ত জানানো হতে পারে বলে জানা গেছে। সাকিবের বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে না থাকার ইঙ্গিত দিয়েছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নুও।

তিনি বলেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে বলতে গেলে আমি মনে করি না যে তিনি (সাকিব) কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকবেন। কারণ আমরা সারা বছর উভয় সংস্করণের জন্যই খেলোয়াড়দের ধরে রেখেছি। তবে শ্রীলঙ্কা সফরের পরিবর্তে আইপিএলে অংশ নেওয়ার সিদ্ধান্তের পরে আমরা অন্যভাবে দেখছি।’


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]