বিদ্রোহী ঠেকাতে ব্যর্থ হিজলা আওয়ামী লীগ


বরিশাল : হিজলা উপজেলার ইউপি নির্বাচনে চার ইউনিয়নে ২০ চেয়ারম্যান প্রার্থীর সবার মনোনয়নপত্রই বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। শুক্রবার বিকালে উপজেলা নির্বাচন অফিসে বাছাই কার্যক্রম শেষে সব প্রার্থীকে বৈধ ঘোষণা করেন উপজেলা রিটার্নিং অফিসার দেলোয়ার হোসেন।

এই চার ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের একাধিক বিদ্রোহী প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

১নং হরিণাথপুর ইউনিয়নে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল লতিফ। বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তৌফিকুর রহমান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ফারুক ইসলাম। এ ইউনিয়নে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী হয়েছেন আব্বাস সিকদার।

২নং মেমানিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের সমর্থিত প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্পাদক মো. ওলিউদ্দিনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। প্রার্থী হিসেবে বৈধ হয়েছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. নাসির উদ্দিন। এছাড়াও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন বাবুল কাজী, দিদারুল ইসলাম, বারেক হোসেন ও দেলোয়ার হোসেন। এই ইউনিয়নে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী হয়েছেন মোসলেম উদ্দিন খান।

৩নং গুয়াবাড়িয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হয়েছেন শাহজাহান তালুকদার। তিনি জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। এছাড়াও বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি তালাৎ মাহমুদ নিপু সিকদার, কেন্দ্রীয় মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম চৌধুরী স্বপন ও উপজেলা কৃষক লীগের আহ্বায়ক মুন্সি মো. এসহাক। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নেবেন মিজানুর রহমান।

৪নং বড়জালিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন মো. এনায়েত হোসেন হাওলাদার। তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি। এই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দাখিল করেছেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পণ্ডিত শাহাবুদ্দিন আহমেদ এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাজের্ন্ট (অব.) মো. হাফিজুর রহমান। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন বৈধ হয়েছে মোহাম্মদ আবদুল্লাহের।

এছাড়া ওই ইউনিয়নগুলোতে সাধারণ সদস্য পদে ১৪০ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এদের মধ্যে সাতজনের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। সংরক্ষিত নারী পদে ৩৭ জন মনোনয়নপত্র জমা দিলে সবাইকে বৈধ ঘোষণা করা হয়।

২৪ মার্চ পর্যন্ত প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করতে পারবেন। প্রতীক বরাদ্দ হবে ২৫ মার্চ। এরপরই শুরু হবে প্রচারণা। ১১ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হবে ভোটগ্রহণ।


[প্রিয় পাঠক, আপনিও (www.barisaltribune.com) বরিশালট্রিবিউনের অংশ হয়ে উঠুন। আপনার এলাকার যে কোন  সংবাদ, লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-barisaltribune@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]